banglanewspaper

লক্ষ্মীপুর: জেলার বালাইশপুরের এসএম আওলাদ হোসেন (৪২) নামে এক সাংবাদিককে হত্যার হুমকি দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ওই সাংবাদিক প্রাণের ভয়ে বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে আওলাদ হোসেন এ বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ ঘটনায় তিনি বৃহস্পতিবার রাতেই সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

সাংবাদিক আওলাদ সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের বালাইশপুর গ্রামের মৃত নজির আহম্মদের ছেলে। তিনি লক্ষ্মীপুর থেকে প্রকাশিত (স্থানীয়) দৈনিক লক্ষ্মীপুর কণ্ঠ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ও জেলা রিপোটার্স ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

সাংবাদিক আওলাদ হোসেন বলেন, ‘বুধবার গভীর রাতে একদল মুখোশধারী সন্ত্রাসী আমার ঘরের পিছনে ওঁৎ পেতে থাকে। বিভিন্ন কৌশলে আমাকে ঘর থেকে বের করার চেষ্টা চালায়। এ সময় আমার স্ত্রী নাসিমা বেগম জানালা দিয়ে দেখতে পায় মুখোশধারী সন্ত্রাসীরা অস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। এক পর্যায়ে পরিবারের লোকজন চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এ সময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় রাতেই পুলিশে খবর দিলে বশিকপুর ফাঁড়ি থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তাৎক্ষণিক এলাকায় অভিযান চালায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘লক্ষ্মীপুরের পূর্বাঞ্চলের সন্ত্রাসীদের নিয়ে বিভিন্ন সময় ধারাবাহিক প্রতিবেদন ও সংবাদ প্রকাশ করায় বিভিন্ন সময়ে সন্ত্রাসীরা অজ্ঞাত ফোন নাম্বার থেকে আমাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে থানায় গিয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করি। ডায়রি নং-১০৮৯।’

এদিকে সাংবাদিককে হত্যার চেষ্টা ও হুমকি দেয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন জেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা। এ বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

লক্ষ্মীপুর চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান বলেন,‘সাংবাদিক আওলাদ হোসেনকে হত্যার হুমকির ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি পেয়েছি। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। শিগগিরই সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করা হবে।’

ট্যাগ: