banglanewspaper

নিয়মিত আয়কর পরিশোধে জনগণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি লক্ষে আগামীকাল সারাদেশে জাতীয় আয়কর দিবস -২০১৬ পালিত হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) দিবসটি পালনে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ উপলক্ষে এনবিআর’র প্রধান কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হবে। র‌্যালিটি জাতীয় প্রেসক্লাব, বাংলাদেশ সচিবালয় এবং বিজয় নগরসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে এটি এনবিআর অফিসের সামনে গিয়ে শেষ হবে।


র‌্যালিতে অন্যান্যের মধ্যে অর্থমন্ত্রী এএমএ মুহিত এবং এনবিআর-এর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান যোগ দেবেন।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবসটির সাফল্য কামনা করে পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে এনবিআর-এর সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারিকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।


রাষ্ট্রপতি বাণীতে বলেন, এনবিআর সুশাসন ও ব্যবস্থাপনা নীতি গ্রহণের মাধ্যমে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি আয়কর মেলা এবং আয়কর সপ্তাহ আয়োজন করাকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে বলেন, এ ধরনের কর্মসূচি দেশে একটি করবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।


রাষ্ট্রপতি বলেন, এনবিআর-এর বিভিন্ন কর্মসূচি কর দাতা ও কর কর্মকর্তাদের মধ্যে একটি ঘনিষ্ট সম্পর্ক সৃষ্টি করতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। এটি দেশে করদাতা ব্যবসা বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করছে।


দিবসটি উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে বলেন, এনবিআর রাজস্ব আরো বাড়ানোর মাধ্যমে বর্তমান সরকারের কর্মসূচি বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।


সরকার আয়কর বান্ধব পরিবেশ এবং করদাতা ও কর কর্মকর্তাদের মধ্যে ঘনিষ্ট পরিবেশ সৃষ্টি করতে এই প্রথম বারের মতো ১ নভেম্বর থেকে দেশের ১৫০টি স্থানে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা এবং ২০ নভেম্বর থেকে প্রথম বারের মতো আয়কর সপ্তাহের আয়োজন করে।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্য আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্য অর্জনের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন হিসেবে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় আমরা সক্ষম হব।
তিনি সরাসরি কর প্রদানের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে সম্পৃক্ত হতে সকলের প্রতি আহবান জানান।

ট্যাগ: