banglanewspaper

ওমর ফারুক, বান্দরবান: ফেইসবুকের কল্যানে স্বাস্থ্যকর্মী মুন্নি বড়ুয়ার লাশ মিলেছে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার ২নং সধনপুর ইউনিয়ের মোজাফফরাবাদ এলাকায় সাঙ্গু নদীর তীরে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার বিকেল পৌঁণে ৪টার দিকে বাঁশখালী থানার সাঙ্গু নদীর তীর এলাকায় জোয়ারের পানিতে একটি লাশ ভেসে আসে। পরে পুলিশে খবর দিলে সাধনপুর ইউনিয়নের রামদাস মুন্সির হাট তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। প্রাথমিক সুরতহাল রির্পোট শেষে ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু লাশের পরিচয় না পাওয়ায় ২টি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হলে আত্মীয়-স্বজনরা লাশটি সনাক্ত করেন। রামদাশ মুন্সির হাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ

মোঃ সুজন সিকদার জানান, গতকাল বিকেল পৌনে চারটায় সাঙ্গু নদীর তীরে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তদন্তে কেন্দ্রে খবর দেয় স্থানীয় লোকজন। তিনি তার র্ফোস নিয়ে মোজাফফরাবাদ এলাকায় সাঙ্গু নদীর তীর থেকে একটি মহিলার লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেন। বর্তমানে লাশটি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে মর্গে রয়েছে। তিনি আরো জানান, লাশের পরিচয় না পাওয়ায় তারা বাঁশখালী থানা ফেসবুক আইডিতে ছবি পোষ্ট করলে লাশের আত্মীয়-স্বজন লাশটি মুন্নি বড়ুয়ার বলে সনাক্ত করেন।

এদিকে নিখোঁজ মুন্নি বড়ুয়ার ভাই মোহনা টিভির বান্দরবান প্রতিনিধি রাহুল কান্তি বড়ুয়া (ছোটন) জানান, তারা ফেসবুকে ছবি দেখে চিনতে পারেন এটি তার বোন মুন্নি বড়ুয়ার লাশ। উল্লেখ্য, গত রবিবার ২৩ জুলাই বান্দরবান-রুমা সড়কের দলিয়ান পাড়া এলাকায় পাহাড় ধসে রুমা উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মী মুন্নি বড়ুয়া,

৮ম শ্রেণীর ছাত্রী সিং মে চিং, কৃষি ব্যাংক রুমা শাখার কর্মকর্তা গৌতম কুমার নন্দী ও রুমা ডাকঘরের পোষ্ট মাষ্টার রবিউল নিখোঁজ ছিল।

ট্যাগ: