banglanewspaper

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি॥ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় নিজ উদ্যেগে ইউএনও’র মোবাইল ফোনে এসএমএস দিয়ে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল জান্নাতি আক্তার নূরী (১৪)। সোমবার রাতে উপজেলার মধ্য গড্ডিমারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, হাতীবান্ধা উপজেলার মধ্য গড্ডিমারী গ্রামের হাফিজুল ইসলামের মেয়ে  ও গড্ডিমারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী নূরীর বিয়ে ঠিক হয় উপজেলার দোয়ানীর সাধুর বাজার এলাকায়।
সোমবার রাতে বিয়ের সকল আয়োজন সম্পন্ন করা হয়। শুধু বর এলেই শুরু হতো বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। এ অবস্থায় নূরী উপায় না দেখে নাম, পরিচয় ও ঠিকানাসহ “বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষার জন্য আবেদন” কথাটি লিখে মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে হাতীবান্ধার ইউএনও’র সৈয়দ এনামুল কবিরকে মেসেজ পাঠায়। ইউএনও এ ধরনের তথ্যের উপর ভিত্তি করে পিআইও ফেরদৌস আহম্মেদ ও সমাজ সেবা অফিসার মাহবুবুল আলমকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছান। তিনি সেখানে গিয়ে মোবাইল নম্বর মিলিয়ে নেন এবং মেয়ের মুখের কথা শুনে এসএমএস’র সত্যতা মিলিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন। নূরীদের মতো অনেক মেয়েই নিজেরাই উদ্যোগী হয়ে তাদের বিয়ে বন্ধ করে দিয়ে লেখাপড়া করে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

হাতীবান্ধার ইউএনও সৈয়দ এনামুল কবির এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বাল্যবিয়ে একটি সামাজিক ব্যাধি। এটি প্রতিরোধে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। এসএমএস’র মাধ্যমে নিজ উদ্যোগী হয়ে বাল্যবিয়ের প্রতিরোধ করায় নূরীর প্রশংসাও করেন তিনি।

ট্যাগ: