banglanewspaper

আশ্রিত রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ক্যাম্প এলাকায় একটি ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করে দেবে মালয়েশিয়া। সফররত মালয়েশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী আহমদ জাহিদ হামিদি আজ কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনকালে বলেন, অতিসম্প্রতি হাসপাতালের কাজ শুরু হবে।

তিনি আশ্রিত রোহিঙ্গাদের সহযোগিতা ও প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে মালয়েশিয়া বাংলাদেশের পাশে থাকারও অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ একা নয়। মালয়েশিয়াও বাংলাদেশের পাশে থাকবে।

ক্যাম্প পরিদর্শনকালে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা মালয়েশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রীর কাছে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে তাদের ওপর ঘটে যাওয়া ভয়াবহ হত্যা-নির্যাতনের কথা তুলে ধরেন। নিজ দেশে অমানবিক আচরণের বিপরীতে বাংলাদেশ মানবিকতা নিয়ে তাদের আশ্রয় দেয়ায় রোহিঙ্গা শরণার্থীরা কৃতজ্ঞতার কথাও তাকে জানান। মালয়েশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী বলেন, আশিয়ানভুক্ত দেশগুলো চাপ সৃষ্টি করলে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাধ্য হবে। রোহিঙ্গাদের বর্ণনায় যেসব নির্যাতন উঠে এসেছে তা বর্তমান সময়ে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আহমাদ জাহিদ হামিদি রোহিঙ্গাদের উদ্দেশে বলেন, নিজেদের অনেক সীমাবদ্ধতা ও নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে। সেটা মাথায় রেখেই শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করতে হবে। বিপুল সংখ্যক লোককে একটি দেশ আশ্রয়ের সঙ্গে সবকিছু শতভাগ নিশ্চিত করতে পারবে না।
এসময় বাংলাদেশস্থ মালয়েশিয়ান দূতাবাস, কক্সবাজার জেলার কর্মকর্তা এবং দেশি-বিদেশি এনজিও প্রতিনিধিরা তার সঙ্গে ছিলেন।

এর আগে সকাল পৌনে ১০টার দিকে ঢাকা থেকে বিশেষ ফ্লাইটে মালয়েশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী আহমদ জাহিদ হামিদি কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। বিকালে তিনি কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকেই মালয়েশিয়ার উদ্দেশে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।

দু’দিনের সফরে রোববার সকালে ঢাকায় পৌঁছেন মালয়েশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী আহমদ জাহিদ হামিদি।

ট্যাগ: