banglanewspaper

প্রশ্নফাঁস ও ঘুষ নিয়ে সম্প্রতি এক বক্তব্যের জেরে ব্যাপক সমালোচনার মুখে অবশেষে পদত্যাগ করতে চেয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসমলাম নাহিদ।

গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে তিনি পদত্যাগের ইচ্ছার কথা জানান। তবে প্রধানমন্ত্রী এতে সায় না দিয়ে মন্ত্রণালয়ে অনিয়মে জড়িতদের খুঁজে বের করার তাগিদ দিয়েছেন। মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, এরপরই দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন মন্ত্রী। সেখানে মন্ত্রণালয়ে বড় ধরনের পরিবর্তনের আভাস দেন তিনি।

একের পর এক পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস, ঘুষ নিয়ে একটি অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্য এবং ঘুষ নেয়ার অভিযোগে ব্যক্তিগত কর্মকর্তা গ্রেপ্তারের পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তাসহ নিশ্চিত করেছেন, প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের ঘটনা সামাল দিতে না পারায়  অনেকটাই হতাশ শিক্ষামন্ত্রী। এসএসসি পরীক্ষায় ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ নিয়ে চলছে নানামুখী সমালোচনা। এমন অবস্থার মধ্যেই সর্বশেষ সোমবার জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ দাবির প্রেক্ষাপটে হতাশ হিন মন্ত্রী। মঙ্গলবার সিলেটের এমপি সেলিম উদ্দীনও নহিদের পদত্যাগ চাইলেন। এমন প্রেক্ষাপটে হতাশ হয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগের ইচ্ছা পোষণ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেন, ‘আমি পদত্যাগ করতে চাই। সম্মান নিয়ে যদি কাজ না করতে পারি তবে এ পদে থাকতে চাই না।’ এ সময় প্রধানমন্ত্রী শিক্ষামন্ত্রীকে শান্ত হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, ‘পাগলামি করবেন না। পদত্যাগ করলেই তো সমস্যার সমাধান হবে না বরং কঠোরভাবে মন্ত্রণালয়ের কাজ-কর্ম পরিচালনা করেন। কর্মকর্তাদের শক্ত হয়ে কাজ করতে হবে। পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস বন্ধে সরকার কী কী কাজ করছে। কারা কোথায় অপরাধ করছে। তাদের খুঁজে বের করতে হবে। জনগণের কাছে কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সঠিক মেসেজটা যেতে হবে।’

একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রীকে বলেন, ‘১০০ অর্জন আছে, দু’একটি ঘটনায় সর্ব অর্জন নষ্ট হতে দেয়া যাবে না। প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ, কারা কোথা থেকে কী করছে, কোন কোন দফতর কী করছে। কীভাবে সমস্যার সমাধান করা যায় সার্বিক বিষয় আমি নজর রাখছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাজ করেন গিয়ে। মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তাদের নিয়ে বসেন। প্রতিমন্ত্রী, দুই সচিবসহ অন্যদের নিয়ে শক্তভাবে সব কিছু দেখেন। সংসদে জাতীয় পার্টির সাংসদদের দাবির প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একজন দুজন বললেই সব শেষ হবে না। অনেক অর্জন আছে। কাজ করতে হবে।

এর আগে সোমবার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের পদত্যাগ দাবি করেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সাবেক মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস এখন মহামারি রূপ নিয়েছে। তাই শিক্ষামন্ত্রীকে বলব ব্যর্থতা স্বীকার করে পদত্যাগ করুন। নতুবা প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব তাকে বরখাস্ত করে নতুন মন্ত্রী নিয়োগ করুন।

ট্যাগ: banglanewspaperশিক্ষামন্ত্রী পদত্যাগ