banglanewspaper

প্রশ্নফাঁস দমনের কৌশল খুঁজতে সরকারের তিন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী-সচিবসহ উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসতে যাচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এতে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ অন্তত ১৮ সংস্থার দফতরের প্রধানদের ডাকা হয়েছে।

প্রশ্নফাঁস ইস্যুতে প্রথমবারের মতো ডাকা ওই সভাটি আজ মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) চৌধুরী মুফাদ আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আগামী পরীক্ষাগুলো সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করতেই এই সভা ডাকা হয়েছে।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘পাবলিক পরীক্ষা আয়োজনের সঙ্গে একাধিক মন্ত্রণালয়ের সম্পৃক্ততা রয়েছে। বোর্ড থেকে প্রশ্ন তৈরি করে বিজি প্রেসে ছাপাতে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফাঁস হলে তার দায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের। কারণ বিজি প্রেস জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীন। বিজি প্রেস থেকে প্রশ্ন ছাপিয়ে ট্রেজারিতে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফাঁস হলে এর দায় মাঠ প্রশাসনের। মাঠ প্রশাসন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অধীন। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে তা ঠেকানোর দায়িত্ব আইসিটি মন্ত্রণালয়ের। আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সমন্বয় ছাড়া প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো সম্ভব নয়।’

প্রসঙ্গত,গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ধারবাহিকভাবে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে। সঙ্গে উত্তরপত্রও। শিক্ষা মন্ত্রণালয় পাঁচ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণাসহ নানা উদ্যোগ নিলেও প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানো যায়নি। বরং পরীক্ষা শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে। সর্বশেষ সোমবারের পরীক্ষায়ও প্রশ্ন ফাঁস হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত ‘প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ সংক্রান্ত তথ্য যাছাই-বাছাই’ কমিটিও প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে। আগামী ২ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নিয়েও চরম আতঙ্কে রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ অবস্থায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর কৌশল বের করতেই সভাটি ডাকা হয়েছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

ট্যাগ: banglanewspaper প্রশ্নফাঁস