banglanewspaper

গত শনিবার নেপালে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানার পর চারদিকে লাশের গন্ধ, আহতদের আর্তনাদ। এছাড়া, বেঁচে যাওয়া মানুষেরা খাবারের জন্য হাহারকার করছে। প্রতিবেশি দেশটির এমন সঙ্কট অবস্থায় কারণে নেপারের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশসহ বিশ্বের অনেক দেশ। এসব দেশের মধ্যে পাকিস্তান একটি।

কিন্তু হিন্দুপ্রধান দেশ নেপালে ত্রাণসামগ্রী হিসেবে পাকিস্তান ‘বিফ মশলা’র প্যাকেট পাঠানোয় দেশটিতে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। হিন্দুপ্রধান দেশ নেপালে শুধু গরুর মাংসই নিষিদ্ধ নয়, গরু জবাই করারও দণ্ডনীয় অপরাধ। এতে ক্ষুব্ধ নেপালিরা বলছে, ‘খাবারের অভাবে মারা যাব তবে পাকিস্তানি ত্রাণ স্পর্শ করবে না তারা।’

কাঠমান্ডু বীর হাসপাতালের ভারতীয় চিকিৎসকরা বুধবার ডেইলি মেইলকে জানান, নেপালের দুর্গত লোকদের ত্রাণসামগ্রীর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার পাকিস্তান ‘বিফ মশলা’ পাঠিয়েছে। তিনি বলেন, আমরা যখন পাকিস্তানের ত্রাণসামগ্রী গ্রহণ করতে বিমানবন্দরে গিয়েছিলাম, আমরা সেখানে প্রস্তুতকৃত খাবারের প্যাকেটের সঙ্গে বিফ মশলার প্যাকেটও পেয়েছিলাম। কিন্তু আমরা ওই খাবার স্পর্শ করিনি।’

উল্লেখ্য, ভূমিকম্পের পর দুর্গতদের চিকিৎসার জন্য ভারত ওই চিকিৎসকদের নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে পাঠায়।

এ বিষয়ে এক নেপালি চিকিৎসক ডেইলি মেইলকে জানান, শহরের অধিকাংশ লোকজন এ ব্যাপারে সচেতন রয়েছে। তারাও তাদের এরকম কোনো ত্রাণ গ্রহণ করবে না। তারা এগুলো এড়িয়ে চলছে।

ট্যাগ: