banglanewspaper

ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনের একজন কর্মী নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশের পক্ষ থেকে কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানের হাইকমিশনার সুজা আলমকে ডেকে কূটনীতিকপত্র ধরিয়ে দেওয়া হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এ তথ্য জানান।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস শাখার কর্মী মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের নিখোঁজ হন। নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ছয় ঘণ্টা পর গভীর রাতে তিনি বাসায় ফেরেন।

ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনের এক কর্মীকে ‘সন্দেহজনক গতিবিধি’র কারণে গতকাল পুলিশ আটক করে পরে ছেড়ে দেয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যে ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনের ওই কর্মীর নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়।

জাহাঙ্গীর হোসেনের নিখোঁজের বিষয়ে জানতে আজ মঙ্গলবার বেলা একটার দিকে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম নিজ কার্যালয়ে সুজা আলমকে ডেকে পাঠান। এ সময় পররাষ্ট্রসচিব মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে সুজা আলম বেরিয়ে বলেন গতকাল ইসলামাবাদে যে ঘটনা ঘটেছে, সে সম্পর্কে তাঁর কাছে বাংলাদেশের উদ্বেগের বিষয়টি জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে ইসলামাবাদে খোঁজ নিয়ে তিনি সেখানকার পরিস্থিতি সম্পর্কে বাংলাদেশকে জানাবেন বলে জানিয়েছেন।

পাকিস্তানে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সোহরাব হোসেন গত রাতে মুঠোফোনে  বলেন, বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস শাখার কর্মী মো. জাহাঙ্গীর হোসেন দাপ্তরিক কাজ শেষ করে প্রতিদিন তাঁর মেয়ে যে কোচিং সেন্টারে পড়ে, সেখানে যান। এরপর মেয়েকে নিয়ে বাসায় ফেরেন। গতকালও তাঁর ওই কোচিং সেন্টারে যাওয়ার কথা ছিল। নির্ধারিত সময়ে তিনি সেখানে না যাওয়ায় জাহাঙ্গীরের মেয়ে বাসায় ফোন করে। এরপর জাহাঙ্গীরকে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। কিন্তু তাঁর সঙ্গে থাকা মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। ইসলামাবাদের স্থানীয় সময় রাত ১২টার দিকে তিনি বাসায় ফেরেন।

ট্যাগ: