banglanewspaper

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সুস্বাদু ফল মাল্টার চাষ। জেলায় দুই শতাধিক বড় বাগানে চাষ হচ্ছে এই ফলটি। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এই জেলায় উৎপাদিত মাল্টা স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে বিদেশেও রপ্তানি করা যাবে বলে আশা করছেন চাষিরা। 

চলতি বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ১২৫ মেট্রিক টন মাল্টা উৎপাদন হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ। এতে সরকারের প্রায় ১৫ কোটি টাকা রাজস্ব সাশ্রয় হয়েছে। উৎপাদিত মাল্টা বাজারজাত করার জন্য কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে দেয়া হচ্ছে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ।

সাইট্রাস ডেভলপমেন্ট প্রকল্পের আওতায় ২০১৩-১৪ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম মাল্টার চাষ শুরু হয়। প্রথমে সীমিত আকারে চাষ হলেও এখন বাড়ছে বাগানের সংখ্যা। জেলার বিজয়নগর, কসবা ও আখাউড়া উপজেলার প্রায় ৭০০ বিঘা জমিতে মাল্টার চাষ করা হয়েছে।

বারি মাল্টা-১ নামে খ্যাত এখানকার মাল্টা খুবই সুস্বাদু। আমদানিকৃত মাল্টার চেয়েও গুণ-মান ভালো। চারা রোপনের ২/৩ বছরের মধ্যেই ফল আসায় এবং লাভজনক হওয়ায় বাড়ছে চাষির সংখ্যা।

চাষিদের মতে, প্রয়োজনীয় সরকারি সহযোগিতা পেলে উৎপাদিত মাল্টায় স্থানীয়ভাবে চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা সম্ভব। ইতিমধ্যে মাল্টা আমদানিকারক আড়ৎদাররা দেশীয় মাল্টা কিনতে চাষিদের সঙ্গে যোগযোগ করছেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আবু নাছের জানান, মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ দেয়ায় চাষিরা মাল্টা চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছে। সেই সঙ্গে ফলন ভালো হওয়ায় চাষিরা লাভবান হবে।

এই কর্মকর্তা জানান, জেলায় দুই শতাধিক বড় বাগান ছাড়াও পারিবারিকভাবে গড়ে উঠেছে দুই হাজার বাগান।

ট্যাগ: Banglanewspaper ব্রাহ্মণবাড়িয়া মাল্টা চাষ উজ্জ্বল সম্ভাবনা