banglanewspaper

সাধারণত একটু নিচে ব্যাট করতে নামেন মাশরাফি। কিন্তু ৩৯তম ওভারে যখন তামিম আউট হন দলের রান তখন ২০০। কিন্তু রানের গতি আরেকটু বাড়াতে চাইছিলেন কোচ। মূলত ৩৫ ওভারের পর থেকেই কোচ স্টিভ রোডস চাইছিলেন রান-রেটটা কিভাবে বাড়ানো যায়। সেই চিন্তা থেকেই তামিম আউট হলে ব্যাট হাতে নেমে পড়েন বাংলাদেশের অধিনায়ক। উদ্দেশ্য রানের গতি বাড়ানো।

মাশরাফির কথায়, ‘৩৫ ওভারে পর থেকে কোচ চাইছিলেন রানরেট বাড়াতে। কোচকে বললাম, আমি যাই? তখন ব্যাটসম্যানদের সোজা শট খেলা কঠিন। চিন্তা করলাম, ঝুঁকিটা আমিই নিই। কোচও রাজি হলেন।’

আর মাশরাফির এই রিস্ক নেওয়া যে মোটেও বিফল হয়নি তা তো বলার অপেক্ষাই রাখে না। ১ ছক্কা ও ৪টি চার মেরে রানের গতি বাড়িয়ে দিলেন তিনি। যেটা পরে গিয়ে ঠেকেছে ৩০১ রানে।

দীর্ঘ ব্যর্থতার পর এমন সিরিজ জয়ে অনেকটাই চনমনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সমানে বেশকিছু দ্বিপাক্ষিক সিরিজ, পাশাপাশি এশিয়া কাপও রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে এ সিরিজয় জয় বাংলাদেশের মানসিক শক্তি আরো বাড়ি দেবে। তবে এখনই আত্মতৃপ্তিতে ভুগতে চান না এই কিংবদন্তি। জানালেন, ‘একটি সিরিজ জয় আমাদের খুব প্রয়োজন ছিল। এশিয়া কাপের আগে এটা খুবই ভাল লক্ষণ। কিন্তু আমাদের আরো উন্নতি করতে হবে। এটা সিরিজ জয়ই সব কিছু নয়। আমাদের বেশ কিছু ভুল রয়ে গেছে। দলের প্রয়োজনের মুহূর্তে রুবেল জ্বলে উঠেছে। এটা উন্নতির লক্ষণ। কিন্তু এ ধারাবাহিকতা আমাদের ধরে রাখতে হবে। ব্যাটিংয়েও আমাদের উন্নতি করতে হবে।’

ট্যাগ: banglanewspaper মাশরাফি