banglanewspaper

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৮৫ সালে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা প্রতিষ্ঠার ১ বছর পর ১৯৮৬-৮৭ অর্থ বছরে ১৬শতাংশ জমির উপর উপজেলা পরিষদের পশ্চিম পাশে ৩ কক্ষ বিশিষ্ট সমাজ সেবা অফিস ভবন নির্মাণ করা হয়। মানুষের সেবার বাতিঘর হলেও দীর্ঘ ৩১ বছরেও ভবনটির ভাগ্যে কোনোই সেবা জোটেনি।

জীর্ণ ভবনের কোন সংস্কার ও পরিমার্জন ছাড়াই দীর্ঘ ৩১ বছরের বৃদ্ধ ভবনটিতে এক পশলা বৃষ্টি পড়লেই ঝরঝরিয়ে পানি পরে। বিল্ডিং এর ভীম ভেঙ্গে পরেছে মেঝেতে। যেকোনো সময়েই ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

বুধবার সকালে প্রতিদিনের ন্যায় অফিস খুলে ঘরে প্রবেশ করতেই ছাদ থেকে ভীম ভেঙ্গে মেঝেতে পরে বলে জানালেন অফিসে কর্মরত এক কর্মচারী।

অফিস সহকারী মোঃ আবুল বাশার বলেন, অল্পের জন্য বেঁচে গেছি প্রাণে। ভাগ্যিস মাথার উপর পরেনি! তিনি আক্ষেপ করে বলেন, কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার ৮হাজার ৫৭জন বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবাদের ভাতার বিনিময় সরকার তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন করলেও সমাজ সেবা ভবনের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি। 

এদিকে বৃষ্টির পানিতে অফিসের মূল্যবান কাগজপত্র ও আসবাবপত্র’ও নষ্ট হওয়ার পথে। তার উপর রয়েছে কর্মরতদের জীবনের ঝুঁকিপূর্ণ অফিস জীবন।

জীর্ণ এই ভবনের করুণ দশা বিবেচনা করে নতুন একটি ভবনের দাবি- খোকসা উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কর্মরত অফিসার ও কর্মচারীদের। 

ট্যাগ: Banglanewspaper খোকসা সমাজসেবা অফিস