banglanewspaper

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাসে পেট্রোল বোমা মেরে আটজন মানুষ হত্যার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন খন্দকার মাহবুব হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ।

মামলাটিতে গত ১ জুলাই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালত। এরপর খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জামিন চেয়ে আবেদন করেন। তখন আদালত ৮ আগস্ট শুনানির দিন ধার্য করেন। এরই মধ্যে তার আইনজীবীরা হাইকোর্টে ১৮ জুলাই জামিনের আবেদন করেন। ২৩ জুলাই হাইকোর্ট ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে খালেদা জিয়ার আবেদন নিষ্পত্তি করার নির্দেশ দেন।

গত ২৫ জুলাই কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ কে এম শামছুল আলম শুনানি গ্রহণ করে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করেন। নিম্ন আদালতের ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করলে আদালত আজ  খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দেন।

২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি রাতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অবরোধের সময় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি বাসে পেট্রোলবোমা ছুড়ে মারেন দুর্বৃত্তরা। এতে আটজন যাত্রী দগ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন ২০ জন।

এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় খালেদা জিয়াকে আসামি করা হয়।

ট্যাগ: কুমিল্লা