banglanewspaper

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর মা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের স্মৃতিচারণ করে বলেন, কারাবন্দি বাবা শেখ মুজিবুর রহমানের কাছে যেতেন এবং তাঁর নির্দেশনা এনে ছাত্রদের বলতেন। তাঁর মা ছিলেন আসল গেরিলা।

বুধবার (৮ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জাতীয় মহিলা সংস্থা ও মহিলা শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ছয় দফা দেওয়ার পর আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার ক্যান্টনমেন্টে বন্দি থাকাকালীন সময়ে প্যারোলে মুক্তি না নিতে মায়ের দেওয়া সেই বার্তার কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমার মা তার মনটা কতটা শক্ত। আমাকে পিছনে বসাল। বলে তুই কাঁদিস কেন? তোর আব্বা ঠিকে ফিরে আসবে। জনগণ সঙ্গে আছে কেউ কিছু করতে পারবে না? আল্লার উপর ভরসা রাখ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হওয়ার পেছনে অামার মায়ের অনেক অবদান ছিল।’ তিনি বলেন, ‘বাবা যখন জেলে থাকতেন নেতারা তখন দিক হারিয়ে ফেলতেন কী করবেন, কোথায় যাবেন তা ভাবতে পারতেন না, তখন তাদের নেতৃত্ব দিতেন অামার মা। অামাদের বাসায় যখন বৈঠক করা নিষেধ ছিল, তখন অামার মা বোরকা পরে বাইরে গিয়ে গোয়েন্দা এসবির (তৎকালীন অাইবি) চোখ ফাঁকি দিয়ে নেতাদের আন্দোলনের পরামর্শ দিতেন। অামার অাব্বার নামে অাইবির ৪৭টি ফাইল ছিল। কিন্তু অামার মার নামে গোয়েন্দারা একটি ফাইলও তৈরি করতে পারেনি। তাই অামি বলি অামার মা ছিলেন সব চেয়ে বড় গোয়েন্দা।’

তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে মা খুব দৃঢ়চেতা ছিলেন। তিনি জানতেন বাংলাদেশ একদিন স্বাধীন হবে। কারণ এ দেশের মানুষ শেখ মুজিবের পেছনে অাছে। অামার বাবা গ্রেফতার হলে অামরা কাঁদতাম কিন্তু মা কাদঁতেন না। মা বলতেন, এ দেশের সাত কোটি মানুষ তোর বাবার পেছনে অাছে, তাকে কেউ অাটকিয়ে রাখতে পারবে না। মা এই কথা বলার পর অপেক্ষা করতাম কোন দিন বাবা মুক্তি পাবে। কিছুদিন পর মার কথাই সত্য হলো। এ দেশের মানুষের অান্দোলনের চাপে পাকিস্তানিরা বাবাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হলো।’

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের অাফরোজ চুমকি সভায় সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাসিমা বেগম এনডিসি। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফজিলাতুন নেছা ইন্দিরা, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম ও সাংসদ রেবেকা মোমেন।

ট্যাগ: banglanewspaper শেখ হাসিনা