banglanewspaper

প্রশান্ত কুমার রায়, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার তরুন সমাজ সেবক হিন্দু যুব নেতা তুষার কান্তি গাইন এর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের উদ্যোগে এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

হিন্দু মহাজোটের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডঃ দিনবন্ধু রায়ের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহ সভাপতি ড. সোনালী দাস, ডা. মৃত্যুঞ্জয় রায়, অ্যাড. বি বি গোস্বামী, প্রদীপ চন্দ্র পাল, প্রধান সমন্বয়কারী বিজয় ভট্টাচার্য, মহাসচিব অ্যাড. গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক, অ্যাড. তারক চন্দ্র রায়, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব উত্তম দাস, যুগ্ম মহাসচিব গোবিন্দ চৌধুরী, অ্যাড. প্রদীপ সরকার, অ্যাড. রামকৃষ্ণ বিশ্বাস, মণিশঙ্কর মন্ডল, ডা. বিদ্যুৎ সূত্রধর, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডঃ প্রতীভা বাকচী, আর্ন্তজাতিক সম্পাদক রিপন দে, তথ্য ও প্রকাশনা সম্পাদক অরুণ মজুমদার, যুব বিষয়ক সম্পাদক সমিরন বড়াল, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সুমন সরকার, সহ সম্পাদক সুশীল মিত্র, ঢাকা দক্ষিনের সভাপতি মিঠু রঞ্জন দেব, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় ফলিয়া, হিন্দু যুব মহাজোট এর সভাপতি কিশোর কুমার বর্মন, জনলা নন্দী পলিন, সাধারণ সম্পাদক মিল্টন বসু, প্রধান সমন্বয়কারী সন্তোষ মাহাতো, আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ সমিত রায়, হিন্দু ছাত্র মহাজোটের আহ্বায়ক প্রশান্ত হালদার, যুগ্ম আহ্বায়ক সাজেন কৃষ্ণ বল, জীবন কুমার রায়, সদস্য সচিব হরেকৃষ্ণ বারুরী।

বক্তাগণ বলেন প্রতিদিনই হিন্দু সম্প্রদায়ের মঠ মন্দির প্রতিমা ভাংচুর, হিন্দু বাড়ী ঘরে অগ্নি সংযোগ, লুঠপাট দেশত্যাগের হুমকী চলছে। কিন্তু কোন অপরাধীর বিরুদ্ধেই শাস্থিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নাই।

হিন্দু মহাজোট একটি অরাজনৈতিক সামাজিক ধর্মীয় সংগঠন। হিন্দু মহাজোট একদিকে যেমন কোন রাজনৈতিক দলের লেজুরবৃত্তি করে না অপরদিকে কোন রাজনৈতিক, সামাজিক ধর্মীয় সংগঠণ বা ধর্মীয় সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধাচরনও করে না। হিন্দু মহাজোট সকল মত ও পথের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। অথচ গোপালগঞ্জের কোটালী পাড়ায় ইসকন মন্দিরে হামলা ও রথ যাত্রায় সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও দোষীদের গ্রেফতার করতে বিক্ষোভ করায় বিশিষ্ট তরুন সমাজ সেবক ও হিন্দু যুব নেতা তুষার কান্তি গাইনকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

রামশীল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি রামানন্দ ঢালী ইসলাম ধর্ম অবমাননার জন্য (কোটালী পাড়া থানার মামলা নং ৩ তারিখ ০২/০৮/১৮) মামলা দায়ের করেছেন। অথচ মামলার বাদী সাক্ষী ও আসামী সবই হিন্দু। আবার ওসি স্ব-প্রণোদিত হয়ে পূর্বে দায়েরকৃত জামায়াতেই ইসলামের কর্মীদের গোপন মিটিং ও জামায়াতে ইসলামের কিছু বই উদ্ধার নিয়ে (কোটালীপাড়া থানার মামলা নং ৭ তাং ০৮/২/১৮) একটি মামলায় শোন এ্যরেস্ট দেখিয়েছে।

বক্তারা বলেন এমন আশ্চর্যজনক অদ্ভুত মামলা এদেশে আর দায়ের হয় নাই। একজন হিন্দুর বিরুদ্ধে একদিকে ইসলাম অবমাননার মামলা, অপরদিকে ইসলামী মৌলবাদীদের সাথে মিটিং। দুটি বিপরীতধর্মী অভিযোগে একজনের বিরুদ্ধে কিভাবে মামলা হয়? কোন সুস্থ মানুষ এরকম মামলা গ্রহণ করতে পারে না। কিন্তু কোটালীপাড়া থানার ওসি সেটাই করে দেখিয়েছে।

বক্তারা তরুন সমাজসেবক তুষার কান্তি গাইনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করেন এবং যেহেতু ঘটনাটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকার সেজন্য বক্তাগণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বহৃদয় আশু হস্থক্ষেপ কামনা করেন।

ট্যাগ: Banglanewspaper যুবনেতা