banglanewspaper

বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য সুযোগ সুবিধা কমাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে প্রকাশিত চূড়ান্ত নীতিমালায় কঠোর নীতির উল্লেখ রয়েছে যা ৯ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে। এর ফলে দেশটিতে বিদেশি শিক্ষার্থীরা এবং তাদের ওপর নির্ভরশীলরা বেআইনিভাবে উপস্থিতির আবেদনপত্র জমা দিতে শুরু করেছেন।

নতুন নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষা গ্রহণের উপযুক্ত প্রমাণ দেখাতে না পারলে সেসব শিক্ষার্থীকে সাথে সাথে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিতাড়ন করা হবে। এছাড়া অননুমোদিত কর্মসংস্থান এবং যুক্তরাষ্ট্রে পড়ালেখা শেষের পর নির্ধারিত সময় পার হলেও যারা যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন তাদের ফেরাতেই এমন কঠোর নীতিমালা নেয়া হয়েছে।

যারা পড়াশোনা করতে যুক্তরাষ্ট্রে যান, তাদের একটি অংশ আবার শিক্ষা জীবন শেষ করেন না। আর শিক্ষায় ধারাবাহিকতা না থাকলে ভিসা পাওয়াও যায় না। আর এই ভিসা ছাড়া উপস্থিতিকে বেআইনি উপস্থিতি হিসেবে ধরা হচ্ছে।

আবার শিক্ষা জীবন শেষ করে চাকরিতে প্রবেশ করতে হলে যে নিয়মনীতি রয়েছে, সেটাও অনেকাংশে পালন করা হয় না। আর এতদিন যুক্তরাষ্ট্র এই বিষয়গুলোতে ছাড় দিয়ে আসছিল। তবে ট্রাম্প জামানায় দেশটি উদার নীতি থেকে সরে এসে কিছুটা কট্টর নীতি গ্রহণ করছে।

নতুন নীতিতে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগের পূর্বে যাদের বেআইনি উপস্থিতি ১৮০ দিনের বেশি ছিল তাদের ওপর তিন থেকে ১০ বছরের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পুনরায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বের অনেক দেশের লাখ লাখ শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের মধ্যে শিক্ষার্থী ভিসা নিয়ে পড়ালেখা না করা বা পড়ালেখা শেষ হওয়ার পরও বেআইনিভাবে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা ব্যক্তির সংখ্যা অনেক।

এই নীতিমালার কারণে বেকায়দায় পড়তে শুরু করেছে দেশটিতে ‘শিক্ষার্থী ভিসা’য় থাকা লাখ লাখ ব্যক্তি। শিক্ষা শেষ করে যারা অনুমতি না নিয়েই দেশটিতে কর্মরত রয়েছেন তাদের জন্যও কঠিন পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper বিদেশি শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্র