banglanewspaper

দেশের বিভিন্ন ক্যাম্পাসে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া নিয়ে বিগত কয়েকদিনে শিক্ষার্থী গ্রেফতার, বহিষ্কার ও শোকজের ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনেকে প্রথমে স্ট্যাটাস দিলেও পরে তা মুছে ফেলেছেন।

এদিকে সন্দেহজনক আইডি শনাক্ত করতে নিয়মিত চলছে অভিযান। নিরাপদ সড়কের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে তা ভিন্ন খাতে নিতে কয়েক দিন ধরেই দেশে নানা ধরনের গুজব ছড়িয়ে পড়েছে।

বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব ও ব্লগে বিভিন্ন উস্কানিমূলক পোস্ট, লেখা, লাইভ ভিডিও এর মাধ্যমে উস্কানি ও গুজব ছড়ানো হয়। অনেকেই গুজব না বুঝে তা শেয়ার করেন, এতে দেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় ছাত্রলীগের আবদারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন প্রক্টর। ওই ছাত্র ফেইসবুকে সরকার, আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু পরিবারকে নিয়ে সমালোচনামূলক স্ট্যাটাস দিয়েছেন বলে ছাত্রলীগের অভিযোগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, সরকারবিরোধী স্ট্যাটাস দেওয়ায় ওই ছাত্রকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) তাকে পুলিশে হাতে তুলে দেয়া হয়। আটক ওই শিক্ষার্থীর নাম রাফসান আহমেদ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি ও আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) সকালে তাকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে দায়েরকৃত এক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়: 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব রটিয়ে সহিংসতার আহবান জানানোর অভিযোগে বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র দাইয়ান আলমকে (২২) গ্রেফতার করে ডিএমপি’র সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগ। বুয়েটের ছাত্র দাইয়ান ফেসবুক লাইভ ও পোস্টসহ নানান কন্টেন্ট পোস্ট ও শেয়ার করে চলমান স্বাভাবিক আন্দোলনকে সহিংস করতে ভূমিকা রাখেন বলে তদন্তে জানা যায়। 

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়:

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলন নিয়ে ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট ও গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের কাছ থেকে একটি ল্যাপটপ, মোবাইলের তিনটি সিম, ভিডিও ক্লিপ, ইসলামি বই, শিবিরে যোগদানপত্র উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-২। র‌্যাবের দাবি, এই তিন শিক্ষার্থী ছাত্রশিবিরের সদস্য।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়:

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সম্পর্কে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) এক শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) দুপুরে এডিশনাল রেজিস্টার (শিক্ষা) স্বাক্ষরিত ওই নোটিশ প্রদান করা হয়।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়:

ছাত্রলীগ নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর ভাষায় স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার (৬ আগস্ট) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফের সই করা আদেশে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়:

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি, ছাত্রলীগ নিয়ে কটূক্তি, ভ্রান্তিকর গুজব ছড়ানো ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিয়ে কটূক্তি করার অপরাধে ছয় শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার এবং দুই শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার (৮ আগস্ট) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিস এ তথ্য গণমাধ্যমকে জানায়।

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়:

ফেইসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে একজনকে বহিষ্কার ও বাকি তিনজনকে শোকজ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর আগে মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে গুজব সৃষ্টিকারীদের একটি তালিকা তালিকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হাতে তুলে দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এ পরিস্থিতি প্রতিহত করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মতামত প্রকাশে শিক্ষক-কর্মচারীদের ওপর অনেকটা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দুটি স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়। অন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সতর্কতামূলক নোটিশ দিয়েছে। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) এক অফিস আদেশে শিক্ষক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা, নার্স ও কর্মচারীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া মতামত দেয়ার ওপর নির্দেশনা দেয়া হয়। নির্দেশ অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়। 

অন্যদিকে, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহ এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এ ধরনের একটি নির্দেশনা দেয়া হয়। শিক্ষক-কর্মচারীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সতর্ক করেছে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী, জাতীয় ঐক্য ও চেতনার পরিপন্থী, রাজনৈতিক মতাদর্শ বা আলোচনা সংশ্লিষ্ট, কোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা রাষ্ট্রকে হেয় প্রতিপন্ন করা, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা, সর্বোপরি জনমনে বিভ্রান্তি, অসন্তোষ বা অপ্রীতিকর মনোভাব সৃষ্টি করতে পারে এমন কোনো বিষয় প্রচার এবং কমেন্ট করা সরকারি আইনের পরিপন্থী। এ ব্যাপারে সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার জন্য আহ্বান জানানো হলো। 

আন্দোলনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ধরনের গুজব ও প্রচারণার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নজরদারি শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ইতিমধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গুজব ছড়িয়ে উস্কানিদাতাদের গ্রেফতারে এখনও অভিযান চলছে। এছাড়া শতাধিক ফেসবুক আইডি চিহ্নিত করে তা বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। 

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের উপ-কমিশনার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে কেন্দ্র করে এক শ্রেণির লোক উস্কানিমূলক পোস্ট ও মিথ্যা তথ্য প্রচার শুরু করেছিল। এতে করে জনমনে আতঙ্ক ও দেশ অস্থিতিশীল হতে পারত। তাই বিভিন্ন সময় এসব অপরাধে জড়িত থাকার অপরাধে আমরা নয়জনকে গ্রেফতার করেছি। রিমান্ডে এনে অনেক আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে চাঞ্চল্যকর অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। 

উল্লেখ্য, আন্দোলন চলাকালীন গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বাংলাদেশে গ্রেফতার ২৩ শিরোনামে শুক্রবার (১০ আগস্ট) একটি খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি। 

মোঃ রেজোয়ান হোসেন  

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, গোপালগঞ্জ-৮১০০

মোবাইল০১৭৪৪-৫২৭ ৯৯৯, ০১৯১৪-৪০৫ ৮৮৯ 

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। বাংলাদেশ নিউজ আওয়ার-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে।)

ট্যাগ: Banglanewspaper ফেসবুক স্ট্যাটাস