banglanewspaper

গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও যত্রতত্র পশু কোরবানি না দিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে সরকার। এজন্য দেশের ১১টি সিটি করপোরেশনে দুই হাজার ৯৩৬টি নির্দিষ্ট স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন এ বিষয়ে তাড়াহুড়ো না করে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে জনপ্রতিনিধিদের পরামর্শ দিয়েছেন।

আগামী বুধবার দেশজুড়ে উদযাপিত হবে ঈদুল আজহা। আর এই ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতায় সামর্থ্যবানরা পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। আর এর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাসহ সারাদেশে নির্দিষ্ট স্থানে পশু জবেহ ও দ্রুত বর্জ্য অপসারণ নিয়ে এক সভা ডাকেন এলজিআরডি মন্ত্রী। এ সময় তিনি এসব কথা বলেন।

সরকার নির্ধারিত স্থানে কোরবানি দিতে নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এতে বর্জ্য অপসারণ, পরিবেশ রক্ষা-দুটোই সহজ হয়।

তবে সভায় দুইজন মেয়রের একজন জানান, তারা নগরবাসীকে উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করছেন, কিন্তু তাতে খুব একটা কাজ হচ্ছে না। তবে একজন মেয়র জানান, তার শহরে এ নিয়ে সচেতনতা বেড়েছে।

সভায় এলজিআরডি মন্ত্রী পশু জবাইয়ের জন্য যেসব স্থান নির্দিষ্ট করে দেয়ার কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘পশু কোরবানির জন্য এই সংখ্যা যথেষ্ট। তারপরেও অনেকে যদি সেই জায়গায় না আসে সেক্ষেত্রে আমি মেয়রদের অনুরোধ করব, আপনারা যথেষ্টভাবে প্রচার-প্রচারণা করুন। যাতে করে মানুষ নির্দিষ্ট স্থানে পশু জবাই করতে আসে।’

‘নির্দিষ্ট স্থানে পশু জবাই করতে আসতেই হবে। আর কোনো রকম খোলা স্থানে কোররবনি করাকে আমরা মোটেই উৎসাহিত করি না।’

অবশ্য এ বিষয়ে জোরাজুরি না করে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে জনপ্রতিনিধিদেরকে কাজে লাগানে চান এলজিআরডি মন্ত্রী। বলেন, ‘খোলা স্থানে কোরবানি করলে শাস্তির নিয়ম আছে। তবে ধর্মীয় বিষয়ে এসব জোরজবরদস্তি করতে গেলে মানুষের মাঝে প্রতিক্রিয়া তৈরি হতে পারে। কাজেই আমাদের উচিত পাড়ায় পাড়ায় সিটি করপোরেশনের যথেষ্ট লোক নিয়োগ করা যাতে করে নির্দিষ্ট স্থানে পশু কোরবানি নিশ্চিত করা সম্ভব হয়। কাউন্সিলরদের মাধ্যমে যাতে করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার বিষয়টি নিশ্চিত করা যায়।’

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বাড়িতে যদি কেউ কোরবানি করে তাহলে তাদের তো আর জোর করার বিষয় নেই। তবে সেখানে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। যাতে কোনকরম পরিচ্ছন্নতার অভাব যেন এলাকাবাসী না করে। নিজেরা কোরবানি করে যদি নিজেরা পরিষ্কার করে ফেলেন তাহলে আমাদের কোনো সমস্যা নেই।’

মন্ত্রী বলেন, যদি কোন নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানি করা হয় তাহলে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা অনেক সুষ্ঠভাবে করা যায়।

ট্যাগ: Banglanewspaper পশু জবাই স্থান নির্দিষ্ট