banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : ঈদের ছুটির শেষ দিন শনিবার। আর ঈদ ছুটির শেষ দিনে গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কে দর্শনাথীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। ঈদের পর গত দুই দিনে যতসংখ্যক দর্শনার্থী ছিল শনিবার পার্কে তার চেয়েও বিপুল সংখ্যক দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছে বলে জানিয়েছেন পার্ক কর্তৃপক্ষ।
 
বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, ঈদের পরের দুই দিনের প্রতিদিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ১০হাজারের মতো দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছিল। আর শনিবার পার্কে আনুমানিক ১৪-১৫ হাজার দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছে। যা ঈদের অন্যান্য দিনের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, দর্শনাথীদের আকর্ষণের কেন্দ্রবৃন্দ ছিল কোর সাফারি পার্কে। কোর সাফারি পার্কে বাঘ, সিংহ, ভাল্লুক, হরিণ, জেব্রা, জিরাফ ইত্যাদি আলাদা আলাদা সীমানা প্রাচীরের ভেতর উন্মুক্তভাবে বিচরণ করে। এসব প্রাণী দেখতে দর্শনার্থীদের পার্কের নির্ধারিত কাঁচ ঘেরা মিনিবাসে চড়ে যেতে হয়। যার কারণে এ অংশ দেখতে সৃষ্টি হয় দর্শনার্থীদের লম্বা লাইনের। প্রায় ঘণ্টাখানেক অবস্থানকালে দেখা গেছে কোর সাফারী পার্কের প্রবেশ লাইনে প্রায় হাজার খানেক দর্শনার্থীরা দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছে।
 
একটি বেসরকারী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আব্দুল হাই নান্না জানান, শনিবার ঈদের ছুটি শেষদিন। রোববার থেকে ব্যাংক খুলছে। সারা বছর ব্যাংকের কাজে একগুয়েমি লাগে যায়। তাই একটু বৈচিত্র আনতেই অফিস খোলার একদিন আগে শনিবার স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সাফারিপার্কে উন্মুক্ত বাঘ,সিংহ,ভালুক ঘুরে গেলাম। খুব ভাল লেগেছে। খুব আনন্দ পেয়েছি।

ঢাকা থেকে আসা ব্যবসায়ী হাসান জানান, সংবাদ মাধ্যমসহ বিভিন্নজনের কাছে সাফারী পার্ক সম্পর্কে শুনেছি। দীর্ঘদিন ইচ্ছে ছিল সাফারি পার্কে আসার। আজ পূর্ণ হলো। অনেক ভিড়ে কষ্টের মধ্যেও স্ত্রী-সন্তান নিয়ে দেশি-বিদেশী অনেক প্রাণি, পাখি দেখে প্রাণ জুড়িয়ে গেছে। এখানে কোন বখাটেদের উৎপাত নেই। ট্যুরিস্ট পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। 

সাফারি পার্ক ট্যুরিস্ট পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই মোকাম্মেল হোসেন জানান, এক সময় সাফারী পার্কে দর্শনার্থীরা নিরাপত্তহীনতার মধ্যে থাকলেও সেখানে ট্যুরিস্ট পুলিশের ক্যাম্প স্থাপনের পর থেকে এখন আর নিরাপত্তাজনিত কোন সমস্যা নেই। পার্কে পর্যাপ্ত সংখ্যক ট্যুরিস্ট পুলিশ দর্শনার্থীদের শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করছেন। 

এবারও কোর সাফারী পার্কে এবং পার্কের প্রধান ফটকে ঢুকতে অতিরিক্ত প্রবেশ ফি নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কোর সাফারি পার্কে পূর্ণবয়স্কদের জন্য প্রবেশ ফি ১০০টাকা অপ্রাপ্ত বয়স্ক ও শিক্ষার্থীদের জন্য ৫০টাকা এবং প্রধান ফটকে পূর্ণবয়ষ্কদের জন্য প্রবেশ ফি ৫০টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০টাকা এবং শিক্ষার্থীদের জন্য ১০টা নির্ধারিত রয়েছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তা মানছেন না। 

যাত্রাবাড়ি থেকে আসা সোনিয়া সুলতানা জানান, তিনি তার স্কুল পড়ুয়া দুই সন্তান নিয়ে পার্কের মূল ফটকে প্রবেশ পথে মাথাপিছু ৫০টাকা এবং কোর সাফারি পার্কে ঢুকতে প্রত্যেককেই ১০০টাকা করে দিতে হয়েছে। 

এ ব্যাপারে কোর সাফারি পার্কের প্রবেশ পথের ইজারা প্রাপ্ত বেঙ্গল ট্যুরস্ এবং পাল এন্টারপ্রাইজের টিকেট কাউন্টারের সুপার ভাইজার মো. হাসান তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমরা নিয়ম মেনেই প্রবেশ ফি নিচ্ছি। কারও কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি নেয়া হচ্ছে না।

 

ট্যাগ: banglanewspaper শ্রীপুর