banglanewspaper

ফেসবুক, টুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপে সক্রিয় না থাকলে ভারতের মধ্যপ্রদেশে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের কংগ্রেস দলের প্রার্থী হওয়া যাবে না বলে বলে জানিয়েছে দলটি।

বার্তা সংস্থা এএনআই জানায়, রোববার দলীয় কর্মীদের জন্য এই নির্দেশ জারি করেছে মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস।

মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস কমিটির (এমপিসিসি) ভাইস প্রেসিডেন্ট সিপি শেখরের সই করা ওই নির্দেশিকায় বলা হয়, প্রতিটি প্রার্থীর নিজস্ব ফেসবুক পেজ ও টুইটার অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

সেই সঙ্গে, তাদের ফেসবুক পেজে কমপক্ষে ১৫,০০০ লাইক এবং টুইটারে ৫,০০০ ফলোয়ার থাকতে হবে। নির্বাচনে প্রার্থী হতে ন্যূনতম এই ‘যোগ্যতা’ তাদের থাকতেই হবে।

পাশাপাশি, সকল দলীয় কর্মীদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেও সক্রিয় থাকতে হবে। আর অবশ্যই এমপিসিসি’র টুইটার অ্যাকাউন্টে কিছু পোস্ট করা হলে তা লাইক এবং রিটুইট করতে হবে।

নরেন্দ্র মোদির ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমেই শক্তিশালী হয়ে উঠছে। সোশ্যাল মিডিয়া পরিচালনার জন্য বিজেপির নির্দিষ্ট কেন্দ্রীয় গ্রুপও আছে। আর ফেসবুক-টুইটার-হোয়াটসঅ্যাপের জনপ্রিয়তা প্রতি মুহূর্তে বেড়েই চলেছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মতো বর্তমানে ফেসবুক-টুইটারে ক্রমেই সক্রিয় হয়ে উঠছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীও। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই মধ্যপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন হবে।

রাজনৈতিক মহলের অভিমত, আরও বেশি করে জনমত প্রচার, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্যই এই পদক্ষেপ নিয়েছে কংগ্রেস।

ট্যাগ: banglanewspaper নির্বাচন