banglanewspaper

ফুটবল খেলার মাধ্যমে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত হয়েছেন সেনেগাল জাতীয় ফুটবল দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় সাদিও মানে। ২৬ বছর বয়সী এই ফুটবলার ক্লাব ফুটবলে এখন খেলেন ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলের হয়ে। তিনি নিজেকে দলের একজন অপরিহার্য খেলোয়াড় হিসাবে তৈরি করেছেন। সাদিও মানে, মোহাম্মদ সালাহ ও রবার্তো ফিরমিনোর সমন্বয়ে লিভারপুলের আক্রমণভাগ দারুণ শক্তিশালী।

যে মানুষটি ‍ফুটবল খেলার মাধ্যমে তারকা খ্যাতি পেয়েছেন তাকে একসময় তার মা-বাবা বলতেন ফুটবলের পেছনে সময় ব্যয় না করে পড়াশোনা করতে। তার মা-বাবা চাইতেন সাদিও মানে শিক্ষক হোক। কিন্তু সাদিও মানে তার সিদ্ধান্তে অটল থেকেছেন। স্বপ্ন পূরণের জন্য পরিশ্রম করেছেন এবং সফল হয়েছেন।

সাদিও মানে বলেছেন, ‘আমি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছি। আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমার মা-বাবা চাইতেন আমি পড়াশোনা করে শিক্ষক হই। তারা ভাবতেন ফুটবল খেলা মানে সময় নষ্ট এবং আমি এতে সফল হব না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি মা-বাবাকে বলেছি ফুটবলই একমাত্র পথ যার মাধ্যমে আমি তোমাদের সাহায্য করতে পারব। আমি তা পেরেছি।’

তিনি বলেন, ‘রাজধানী থেকে আমার বাড়ি অনেক দূরে। বলতে গেলে সেখান থেকে কেউ সফল হয়নি। সুতরাং, আমার মা-বাবা বিশ্বাস করতেন না যে আমি পারব। এটা বিশ্বাস না করারই কথা। কারণ আমার ফুটবলার হওয়ার পথটা সহজ ছিল না। কিন্তু আমি যখন প্রথম প্রফেশনাল কন্ট্রাক্টে স্বাক্ষর করি তখন তারা বিশ্বাস করেছেন।’

ট্যাগ: banglanewspaper মা-বাবা ফুটবল