banglanewspaper

মন্দিরে গিয়ে হনুমানের লাথিতে বেঘোরে প্রাণ হারালেন এক নারী। গতকাল বুধবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের নদীয়া জেলার নবদ্বীপের গুপীনাথ মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত নারীর নাম সরস্বতী দাস (৪৮)। তিনি হুগলি জেলার সিঙ্গুর থানার ঘনশ্যামপুর এলাকার বাসিন্দা।

জানা যায়, নবদ্বীপে এক আত্মীয়র বাড়িতে এসে ভগবত পাঠ শুনতে গিয়েই হনুমানের লাথিতে মারা যান তিনি। গত মঙ্গলবার থেকে নবদ্বীপের চটিরমাঠ এলাকার গুপীনাথ মন্দিরে চলছে সাত দিনের ভগবত পাঠ। সেই ভগবত পাঠে অংশ নেওয়ার জন্য সিঙ্গুর থেকে নবদ্বীপের আত্মীয়র বাড়িতে আসেন ওই নারী।

বুধবার সকালে আত্মীয়র বাড়ি থেকে গুপীনাথ মন্দিরে যান ওই মহিলা। এরপর জপের মালা নিয়ে মন্দিরের ভিড় এড়াতে মন্দির সংলগ্ন একটি বাড়ির ছাদে উঠে যান তিনি। ছাদে বসেই জপের মালা হাতে নিয়ে ধ্যান করছিলেন তিনি। সেই সময় মন্দির চত্বরে খাবার না পেয়ে ওই ছাদের ওপর লাফালাফি করছিল একদল হনুমান। লাফালাফি করতে করতে একসময় হনুমান দলের নজর পড়ে জপের মালা হাতে ধ্যানমগ্ন ওই নারীর দিকে।

এরপর হনুমান দল তাঁর দিকে ধেয়ে এসে প্রথমে ভেংচি কাটে। ওই সময় সামনে একসঙ্গে এত হনুমান দেখে কিছুটা ভয় পেয়ে যান ওই নারী। হনুমানের ভয়ে ছাদের কিনারার দিকে সরে আসেন তিনি। তখন রেগে গিয়ে হনুমান দল ওই নারীকে লাথি মারে। হনুমানের লাথিতে ছাদের কিনার থেকে সোজা মন্দির চত্বরে ছিটকে পড়েন ওই নারী।

ঘটনার জেরে মাথায় গুরুতর আঘাত লাগে সরস্বতীর। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় ভক্তিনগর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা ওই নারীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় গুপীনাথ মন্দিরে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper হনুমানের লাথি প্রাণ গেল