banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর, (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের টেপির বাড়ী ছাতিরবাজার এলাকায় ডিবিএল  কারখানা থেকে বনের জমি দখলমুক্ত করে করে  বনায়ন করার কয়েকদিন পর রোপণ করা চারা উধাও হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এতে বন মামলার আতংকে রয়েছে ওই এলাকার বাসিন্দারা।এর আগেও চারা উধাও হওয়ার ঘটনায় ঘটেছে । এতে উল্টো সাধারন লোকদের  হয়রানী করা হয়েছে বলেও জানান তারা।

সাতখামাইর বিট অফিসের তথ্য মতে, ৯নং টেপিরবাড়ী মৌজার সিএস-৫৩ দাগের পুরোটাই গেজেট। এখানে মোট ২২৮.১৭ একর বনের জায়গা রয়েছে। তার মধ্যে বেশির ভাগই ভ’মিদষ্যুদের  দখলের কবলে পঢ়েছে। বিভিন্ন সময় বন বিভাগ দখলে থাকা বনের জমি উদ্ধার করে বনায়ন করলেও পূণরায় সেগুলো দখল হয়ে যাচ্ছে ।বনের চারা রোপণের পর রাতের আধাঁরে তা সড়ানো হচ্ছে। গত ১৮ আগস্ট শ্রীপুর রেঞ্জ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে এক অভিযান পরিচালনা করে ডিবিএলকারখানা  থেকে প্রায় ১.২৫একর বনের জমি উদ্ধার করে সেখানে প্রায় ১ হাজার চারা রোপণ করা হয়। 

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়,  বন বিভাগ ওই চারা রোপনের ২ দিন পরে এক রাতেই প্রায় সব চারা উধাও হয়ে যায় । পরে বনবিভাগের লোকেরা খোঁজ নিতে এসে আমাদেরকে মামলার হুমকি দেয়। এতে ওই এলাকার লোকজন জমি ছেড়ে দিয়ে অনত্র চলে যায়। এ সুযোগে ডিবিএল ঐসব জমি দখল করে নেয়। বনের লোকদের সাথে তাদের একটা যোগাযোগ আছে বলেও জানান তারা।

এ ব্যাপারে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে অপারকতা জানিয়ে ডিবিএল-এর স্টেট অফিসার আমিনুল ইসলাম প্রিন্স জানান,আমরা বন বিভাগ কর্তৃক লাগানো চারার বিষয়ে কিছু বলতে পারবোনা। বনবিভাগ জোর করে আমাদের জমিতে চারা লাগিয়েছে।

ডিবিএল- এর মালিক ওয়াহিদুজ্জামান বাবুলের মুঠোফোনে কয়েকবার যোগাযোগের চেষ্ঠা করা হলেও ফোন রিসিব করেনি। 

শ্রীপুর রেঞ্জ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক জানান, ডিবিএল  কারখানা থেকে বনের জমি দখলমুক্ত করে বনায়ন করা হয়েয়ে। বনের চারা উঠানোর খবর পেয়েছি। কে বা কাহারা সেগুলো উঠিয়েছে সাতখামাইর বিট কর্মকর্তাকে বিষয়টি দেখার জন্য পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরোদ্ধে মামলা দেয়া  হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 শ্রীপুর গাজীপুর