banglanewspaper

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএম চাপিয়ে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। বলেছেন, ‘আইনগত অনুমোদন পেলে যতটুকু পারা যায় নিখুঁতভাবে নিশ্চিত হয়ে ইভিএম ব্যবহার করা হবে।’

শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে একাদশ জাতীয় সংসদ উপলক্ষে নির্বাচনী কর্মকর্তাদের টিওটি প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিইসি এসব কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ‘ইভিএম নিয়ে মানু্ষের মনে প্রশ্ন থাকতেই পারে। তবে ইভিএম কি তা ভোটাদের জানাতে হবে। ভোট পবিত্র আমানত। ইভিএম ব্যবহারে যোগ্যতা অর্জন, আাইনগত ভিত্তি ও ব্যবহার উপযোগি হলে আগামী সংসদ নির্বাচনে এটি ব্যবহার হবে।’

নির্বাচনী অংশীজনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ইভিএম কি, দেখুন, জানুন, তারপর বলুল ইভিএম ব্যবহার করা যাবে কি না। না জেনেই যদি বলেন এটি ব্যবহার করা যাবে না; এটি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। তাহলে সেটা দুঃখজনক।’

‘জানার পর মন্তব্য করলে ভালো হয়। আমাদের অবশ্যই আধুনিক প্রযুক্তির দিকে ধাবিত হতে হবে। নির্বাচনের ম্যানুয়াল পদ্ধতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে।’

সিইসি বলেন, ‘আাগামী সংসদ নির্বাচনের বেশি দিন নেই। দুই থেকে আড়াই মাস। প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে।’

এসময় ২০১৮ সালের শেষে অথবা ২০১৯ সালের শুরুতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলেও উল্লেখ করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

নির্বাচনী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন গ্রহণযোগ্য করার জন্য এই কর্মশালা। দক্ষতা অর্জন করে নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে হবে।’

নির্বাচনি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুকের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ মোখলেসুর রহমান। কর্মশালায় ৫০ জন কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 ইভিএম সিইসি