banglanewspaper

জহির রায়হান, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের চিত্র তুলে ধরতে ব্যাপক কাজ করে চলছেন সিরাজগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম হাশেম।

এরই মধ্যে এলাকায় ব্যানার, ফেস্টুন, লিফলেট ও তোরণ নির্মাণের পাশাপাশি তিনি স্থানীয় এমপির (সদর-কামারখন্দ) পক্ষে বিভিন্ন প্রচার-প্রচারণাও চালিয়ে যাচ্ছেন। 

সরেজমিনে দেখা দেছে, জেলার রাস্তার মোড়সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে শোভা পাচ্ছে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সচিত্র। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে ভোট অর্জনের জন্য যা ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে। 

বর্তমান সরকারের প্রতিটি প্রকল্প (জাতীয় বা সিরাজগঞ্জ কেন্দ্রীক) জনগণের নিকট তুলে ধরছেন নজরুল ইসলাম হাশেম। তার এই প্রচারণায় কোণঠাসা সরকার বিরোধীরা। 

নজরুল ইসলাম হাশেম বলেন, ‘এই প্রচারণার মাধ্যমে মানুষের মাঝে সরকারের প্রতি বিশ্বাসী আরো বাড়বে। ফলে তারা সরকারের বিপক্ষে শক্তি মিথ্যা প্রলোভন দিয়ে মানুষকে প্রলুব্ধ করতে পারবে না। দেশের বা জেলার চলমান উন্নয়ন ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে একটি কুচক্রী মহল নানা ভাবে চক্রান্ত করে তারা শেষ পর্যন্ত ব্যর্থতায় পরিনত হয়েছে। দেশের জনগনই প্রমাণিত আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন হয়। তাই জনগন আবারো নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারকে নির্বাচিত করবে।

আমাদের বর্তমান এমপি অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না যে উন্নয়ন জেলার মানুষের জন্য করেছেন তা অকল্পনীয়। আমি সেগুলো সম্পর্কে সঠিক তথ্য ও পরিস্থিতি মানুষের কাছে তুলে ধরছি। এক সময়ের বন্যা কবলিত জেলা এখন উন্নয়ন আর উন্নয়ন চোখে পড়বে। আর এসব হয়েছে বর্তমান এমপির হাত ধরে।’

তিনি বলেন, ‘অনেক নেতায় নিজের উন্নয়ন ও দলীয় পদ-পদবীর আশায় তদবির এবং সুপারিশ নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু আমি একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী হয়েও জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরায় সব সময় কাজ করি; মানুষের সাথে গর্বের সাথে আলোচনা করি।

দেশের উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগের বিকল্প নেই। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে জনগন কিছু পায়। আর জেলার উন্নয়নের জন্য বর্তমান এমপি ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না’র ক্ষমতায় আনার বিকল্প নেই।’

প্রসঙ্গত, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কামারখন্দ উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় কামারখন্দ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আনা হয়েছে, ফায়ার সার্ভিস কার্যালয় নির্মাণসহ বিভিন্ন কাঁচা রাস্তা পাকা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৩৫ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ কার্যক্রম দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

অনেক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে সমাপ্ত হয়েছে। আর এসব করেছেন বর্তমান এমপি ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না।

ট্যাগ: bdnewshour24 সরকারের উন্নয়ন