banglanewspaper

তামিমের ইনজুরিতে ইমরুলকে দুবাই উড়িয়ে আনার কথা বলেছিলেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি। কিন্তু সঙ্গে যে সৌম্যকেও পাঠালেন নির্বাচকরা সেটি জানা ছিল না ম্যাশের। তবে সম্প্রতি আয়ারল্যান্ড সফরে সৌম্যের ব্যাটিং মনে ধরেছে কোচ স্টিভ রোডসের। তাই রোডসই নাকি সৌম্যকে দুবাই পাঠাতে বলেছেন। 

গতকাল শনিবার রাত ১১টায় দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস। সকালে দুবাই থেকে আবুধাবির পথে রওনা দিয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। 

এখন প্রশ্ন থাকছে- হঠাৎ উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া সৌম্য-ইমরুলকে কি আজ মাঠে দেখা যাবে? বিষয়টির সমাধান গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত করতে পারেনি টিম ম্যানেজমেন্ট। 

তামিমের ইনজুরিতে বদলি কাউকে নেয়া হয়নি দলে। সাকিবও আঙুলের ইনজুরি নিয়ে খেলে যাচ্ছেন। ‍এদিকে পাজরের হারের ব্যথা নিয়ে ধুঁকছেন মুশফিক। দলে সিনিয়র ক্রিকেটাররা যখন ইনজুরি-জর্জর অবস্থায় তখন জুনিয়ররাও ব্যর্থ হচ্ছে বারবার। 

বলা হচ্ছে- ইমরুলের সঙ্গে ব্যাপআপ হিসেবে সৌম্যকেও আনা হয়েছে। এছাড়া অধিনায়ক মাশরাফির পছন্দের একাদশ বারবার ব্যর্থ হওয়ায় তার ওপরও ভরসার জায়গাটি কিছুটা টলে গেছে। সঙ্গে স্টিভ রোডসের পছন্দের তালিকায় আছে সৌম্যের নাম। 

তবে আজ ইমরুলকে ওপেনিংয়ে নামানোর একটি সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত। মোসাদ্দেকে বসিয়ে আরিফুল কিংবা সৌম্যকে মাঠে নামানো হতে পারে। সেক্ষেত্রে লিটন দাসকে একাদশের বাইরে রাখার সম্ভাবনা আছে। একাদশে থাকা না থাকা নিয়ে আশঙ্কা আছে নাজমুল হাসান শান্তরও। 

টানা দুটি ম্যাচে দল খারাপ ফলাফল করায় হঠাৎ ইমরুল-সৌম্যকে উড়িয়ে নেয়াকে নির্বাচকদের অস্থিতিশীলতারই বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করছেন সাবেক ক্রিকেটাররা। এতে দলের ভারসাম্যেও বাজে প্রভাব পড়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকেই। যদিও মাশরাফি নিজে লিটন-শান্তর ওপরই ভরসা রেখেছিলেন। 
 

ট্যাগ: bdnewshour24 ইমরুল সৌম্য