banglanewspaper

মুসলিম রোহিঙ্গাদের গণহত্যা ও নির্যাতনের জন্য আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমার সেনা কর্মকর্তাদের বিচারের মুখোমুখি করার যে চেষ্টা করছে জাতিসংঘ তার প্রতিক্রিয়া দেখালেন দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাং। তিনি বলেছেন, ‘মিয়ানমারের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই জাতিসংঘের।’

বার্তা সংস্থা এএফপিসহ আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এ খবর দিয়েছে। ২৭ আগস্ট এক প্রতিবেদনে রোহিঙ্গা গণহত্যায় সেনাবাহিনীর সংশ্লিষ্টতার কথা তুলে ধরে জাতিসংঘ। এতে বলা হয়-  সেনাবাহিনীর সঙ্গে বেসামরিক কর্তৃপক্ষ এই গণহত্যায় ইন্ধন জুগিয়েছে। তাই তাদের আন্তর্জাতিক আদালতে হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করা হয়।

সেনাবাহিনীর প্রধান বলেন, ‘বিশ্বের একেক দেশের গণতন্ত্র চর্চার ধরন একেক রকম। একটি দেশ সেই ধরনের গণতন্ত্রের চর্চা করে, যা তার জন্য উপযুক্ত। সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে মিয়ানমারও স্বাধীন একটি পররাষ্ট্র নীতির চর্চা করে এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ একটি অবস্থান বজায় রেখে চলে।’

তার দাবি, ‘জাতিসংঘের একটি সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে মিয়ানমার জাতিসংঘের যেসব চুক্তিতে সই করেছে, সেগুলো প্রতিপালন করে। প্রতিটি দেশ যেহেতু নিজের মত করে আলাদা মানদণ্ড ও আদর্শ নির্ধারণ করে, সেহেতু তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার বা তাদের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার কোনো দেশ, কোনো সংস্থা বা কোনো গোষ্ঠীর নেই।’
 

ট্যাগ: bdnewshour24 সেনাপ্রধান