banglanewspaper

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন যাওয়ার ফ্লাইটের আগে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের কেবিন ক্রু মাসুদা মুফতির মাদক গ্রহণ এবং তথ্য গোপনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল।

মন্ত্রী বলেন, ‘ইতোমধ্যেই অভিযুক্তদের গ্রাউন্ডেড করা হয়েছে। বিভাগীয় তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষ দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মঙ্গলবার বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

গত শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন যাওয়ার ফ্লাইটের আগে ডোপ টেস্টে বিমানের কেবিন ক্রু মাসুদা মুফতির মাদক গ্রহণের প্রমাণ পাওয়া যায়। এ জন্য ওই দিন লন্ডনগামী ওই ফ্লাইট থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এরপর রবিবার তাকে গ্রাউন্ডেড করা হয়।

আর বিমানের ফ্লাইট সার্ভিসের উপমহাব্যবস্থাপক নুরুজ্জামান রঞ্জু এই তথ্য ফ্লাইট সিডিউল বিভাগকে না জানানোয় ফ্লাইট সার্ভিস থেকে পরদিন সিঙ্গাপুর রুটেও মাসুদাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। তাই দায়িত্বে অবহেলা ও মাসুদা মুফতির মাদক গ্রহণের তথ্য গোপন করায় রঞ্জুকেও গ্রাউন্ডেড করা হয়।

আইন অনুযায়ী ডোপ টেস্টে কোনও ব্যক্তির শরীরে মাদক সেবনের প্রমাণ পাওয়া গেলে তিনি ৯০ দিন ফ্লাইট সংক্রান্ত কোনো ডিউটি পাবেন না।

এত বড় অপরাধের পর কীভাবে তাকে ডিউটি দেয়া হল? সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিমানমন্ত্রী বলেন, ‘নারী ক্রু সৈয়দা মাসুমা মুফতিকে সাসপেন্ড করা হয়েছে জানি। তদন্ত হচ্ছে। তবে তার বস রঞ্জুকে ডিউটি দেয়া হয়েছে তা আমি জানি না। আমি এখনই ফোন করে এমডিকে বিষয়টা জিজ্ঞেস করবো।’

দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প কেন পিছিয়ে আর এটি গুলশানের হলি আর্টিজানের হামলার কোনও প্রভাব কিনা? এমন প্রম্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের প্রবৃদ্ধি কম। তবে দ্রুত হচ্ছে। আর হলি আর্টিজান আমাদের পর্যটন শিল্পের জন্য একটা বড় ধাক্কা ছিল।’

‘এর পেছনে বাংলাদেশের স্বাধীনতার শত্রুরা দায়ী। যারা মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে, এটা তাদের কাজ। এখন আমরা ঘুরে দাঁড়াচ্ছি।’

বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিনের ট্যুরিজম ফেস্ট

‘পর্যটন শিল্পের বিকাশে তথ্যপ্রযুক্তি’ প্রতিপাদ্যে বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে আগামী বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরে শুরু হবে ‘ট্যুরিজম ফেস্ট ২০১৮’। তিন দিনের এই আয়োজন চলবে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

উৎসবস্থলে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে পর্যটন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্য ও সেবা প্রদর্শন করবে। ২৭ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল।

উৎসবের দ্বিতীয় দিন ২৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টায় বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক।

২৯ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টায় উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

উৎসবকে কেন্দ্র করে প্রতিদিন বিকাল ৫টায় রয়েছে বর্ণিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে আদিবাসী ও ফোক নৃত্যের পাশাপাশি থাকছে লালন, বাউল ও জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীদের পরিবেশনা।

এ ছাড়া আগামী শুক্রবার বসুন্ধরায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে তিন দিনব্যপী ৭ম এশিয়ান ট্যুরিজম ফেয়ারের আয়োজন করা হয়েছে।

ট্যাগ: Banglanewspaper প্রধানমন্ত্রী