banglanewspaper

মো. আবু সাঈদ, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি :  নওগাঁর পত্নীতলায় মতবিনিময় সভার নামে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকদের নিকট থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মতবিনিময় সভার খরচ হিসাবে উপজেলার ১৩৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের জন্য ৫শত টাকা, সহকারী শিক্ষকদের জন্য ৩শত টাকা এবং দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরীদের জন্য ১শত টাকা করে চাঁদার পরিমাণ নির্ধারণ করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। ইতিমধ্যে অনেক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা স্ব-স্ব ক্লাস্টারের দায়িত্ব প্রাপ্ত সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারদের নিকট তাদের চাঁদার টাকা জমা দিয়েছেন বলেও জানা গেছে।

সরেজমিনে অনুসন্ধানে জানা গেছে, আগামী ১৪ অক্টোবর জেলা পরিষদ ডাকবাংলোয় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে সকল শিক্ষকদের নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত সভায় অংশগ্রহণকারীদের খাবার ও অন্যান্য খরচ হিসাবে শিক্ষকদের নিকট থেকে উল্লেখিত পরিমাণ চাঁদা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এই মতবিনিময় সভায় ধামইরহাট-পত্নীতলা আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ আলহাজ শহীদুজ্জামান সরকার প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন বলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে। শিক্ষা অফিস কর্ত্তৃক মতবিনিময় সভার আয়োজনকে কয়েকজন প্রধান ও সহকারী শিক্ষক সাধুবাদ জানালেও এ উপলক্ষ্যে চাঁদা গ্রহণ করায় তাঁরা কর্ত্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন শিক্ষক জানান, গত বছরও শিক্ষকদের কাছ থেকে চাঁদা নিয়ে ঐতিহাসিক দিবর দিঘীতে এ ধরনের কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছিল। এ বছরও একই কায়দায় প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কতিপয় শিক্ষককে সাথে নিয়ে মতবিনিময় সভার নামে চাঁদাবাজি শুরু করেছেন। মতবিনিময় সভা আয়োজনের দায়িত্ব প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের। এজন্য শিক্ষকদের নিকট হতে কেন চাঁদাবাজি করতে হবে এমন প্রশ্নও তাঁরা করেন।

এদিকে চাপিয়ে দেওয়া চাঁদাবাজির কারণে সকল স্তরের শিক্ষকদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। উর্দ্ধতন কর্ত্তৃপক্ষ কর্ত্তৃক চাঁদা চাপিয়ে দেওয়ায় ভয়ে তাঁরা প্রতিবাদ করতে পারছেন না। মতবিনিময় উপলক্ষ্যে উপজেলার ১৩৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে প্রায় ৩লাখ টাকা চাঁদা সংগ্রহ করা হবে বলেও অভিযোগকারী শিক্ষকরা এ প্রতিবেদককে জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রবিউল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে শিক্ষকদের কাছ থেকে চাঁদা গ্রহণের প্রসঙ্গ তুলতেই তিনি ফোনটি কেটে দেন। এর পর বার বার চেষ্টা করা হলেও তিনি আর ফোন রিসিভ করেননি।

ট্যাগ: bdnewshour24 পত্নীতলা নওগাঁ চাঁদাবাজি