banglanewspaper

মাস্টার আবিরের বয়স ১৪ বছর, মাঝে মাঝে গলা ব্যথা হয়, তিন দিন ধরে বাম হাঁটুর গিরা ফুলে গেছে। ব্যথার ওষুধ খেয়ে ব্যথা কমেছে। ডাক্তারের কাছে গেলে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বাতজ্বর ধরা পড়ল। ডাক্তার ২১ দিন পরপর বাতজ্বরের প্রতিরোধমূলক পেনিসিলিন ইনজেকশন ১৯ বছর পর্যন্ত নিতে বললেন।

বাতজ্বরে শরীরের বড় জয়েন্টগুলো আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি হৃদপিণ্ডের ভাল্ব ও বাইরের পর্দাও আক্রান্ত হতে পারে। এজন্য ডাক্তারের কাছে ৩-৬ মাস পরপর ফলোআপে আসতে হবে। ইকোকার্ডিওগ্রাম করে হৃদপিণ্ডের এ অবস্থা জানা যায়।

ওষুধ নিয়মিত না খেলে বাতজ্বর আবার হতে পারে এবং হৃদপিণ্ডের ভাল্বের মুখ সরু হয়ে যায়, যাকে স্টেনেসিম বলে। ভাল্ব বেশি নষ্ট হলে কৃত্রিম ভাল্ব দিয়ে প্রতিস্থাপন করতে হয় অথবা বেলুন দিয়ে ভাল্বের মুখ বড় করার প্রয়োজন হতে পারে।

হৃতপিণ্ডের মাংসপেশি আক্রান্ত হলে রোগীর হার্ট ফেইলুর হতে পারে বা হৃদপিণ্ডের চারপাশের পর্দা আক্রান্ত হয়ে এ স্থানে পানি জমতে পারে। একে পেরিকার্ডিয়াল ইফিউশন বলে। এ অবস্থায় রোগীদের জ্বর, বুক ধড়ফড় ও নিঃশ্বাসে কষ্ট হয়।

চিকিৎসা নিলে হার্ট ফেইলুরের রোগীর অবস্থা ধীরে ধীরে উন্নতি হয় এবং হৃদপিণ্ডের কার্যক্ষমতা স্বাভাবিক হয়ে আসতে থাকে। তবে নিয়মিত ওষুধ খেতে হবে। কারও যদি ঘন ঘন গলাব্যথা, জ্বর হয় তাহলে গিরাব্যথা বা গিরা ফোলা থাকুক বা না থাকুক বাতজ্বর নির্ণয়ের জন্য হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেয়া উচিত।

অধ্যাপক ডা. তৌফিকুর রহমান ফারুক

মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, মেডিনোভা মেডিকেল মালিবাগ।

মোবাইল-০১৭৭৭৭৫১২৫১

ট্যাগ: bdnewshour24 জ্বর গলা গিরা ব্যথা