banglanewspaper

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহে ডিবি পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছেন, যিনি শীর্ষ মাদক কারবারি ও ১১ মামলার আসামি বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি। শহরতলী আকুয়া দরগারপাড় এলাকায় সোমবার মধ্যরাত পৌনে দুইটার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির নাম পায়েল। ২৯ বছর বয়সী পায়েল শীর্ষ মাদক কারবারি ও ছিনতাইকারী দলের সদস্য ছিল বলে দাবি পুলিশের। তার বিরুদ্ধে মাদক ও ছিনতাইসহ ১১টির মতো মামলা আছে। এছাড়াও তিনি পুলিশের কাছ থেকে পলাতক এবং পরোয়ানাভুক্ত আসামি ছিলেন। নিহত যুবক নগরীর পুরোহিতপাড়া এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় জাকির হোসেন নামে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কনস্টেবল আহত হয়েছেন। তাকে উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সোমবার মধ্যরাতে ডিবি ওসি এবং ওসি তদন্তের নেতৃত্বে ডিবি’র দুইটি চৌকশ টিম শহরতলীর আকুয়া দরগাপাড়া এলাকায় বিশেষ মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে যায়। এ সময় আব্দুল মান্নানের ইটভাটার সামনে পাকা রাস্তার পাশে পৌঁছলে অজ্ঞাতনামা কয়েকজন মাদক কারবারি পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপসহ এলোপাথাড়ি গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোঁড়ে।

গোলাগুলির একপর্যায়ে মাদক কারবারিরা পালিয়ে গেলেও পায়েলকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। দ্রুত উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির কনস্টেবল মো. জাকির হোসেন নামে এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাকে জেলা পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ট্যাগ: bdnewshour24 ময়মনসিংহ বন্দুকযুদ্ধ