banglanewspaper

নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় কাদুনা রাজ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় অন্তত ৫৫ জন নিহত হয়েছেন। চলতি সপ্তাহে রাজ্যের কাসুয়ান মাগানি শহরে এ ঘটনা ঘটে। দেশটির প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারির উদ্ধৃতি দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবামাধ্যম বিবিসি।

স্থানীয় সময় শনিবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে প্রেসিডেন্ট বুহারি বলেন, ‘কাসুয়ান মাগানি শহরের দাঙ্গায় এ পর্যন্ত ৫৫ জন নিহত হয়েছেন। এটা খুবই দুঃখজনক।’

বুহারি বলেন, ‘মানুষকে আঘাত করাকে কোন সংস্কৃতি ও ধর্মই সমর্থন করে না। যেকোনো সমাজের কল্যাণ ও অগ্রগতির জন্য শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান জরুরি। বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে সুসম্পর্ক ছাড়া আমাদের দৈনন্দিন উদ্দেশ্য সাধনও সম্ভব নয়।’

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কাসুয়ান মাগানি শহরের একটি বাজারে ঠেলাগাড়ি চালকদের মধ্যে বিতণ্ডার জের ধরে মুসলিম ও খ্রিস্টান তরুণরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে এটা সাম্প্রদায়ক দাঙ্গায় রূপ নেয়।

এ বিষয়ে এক প্রতিবেদনে সিঙ্গাপুরভিত্তিক সংবাদমাধ্যম চ্যানেল নিউজ এশিয়া জানায়, গত বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) রাজ্যটির কাসুয়ান মাগানি অঞ্চলটির একটি বাজারে হুসা মুসলিমদের সঙ্গে আদারা খ্রিস্টান যুবকদের মধ্যে বিতর্কের জেরে এ সহিংসতার সূত্রপাত হয়। সেদিনই প্রাণ হারান অন্তত দুইজন। পরে স্থানীয় পুলিশের মধ্যস্থতায় এ সহিংসতা দমন করা হয়।

সংবাদে আরও বলা হয়, পরবর্তী সময় সেখানকার খ্রিস্টান যুবকরা সংগঠিত হয়ে হুসা মুসলিম বাসিন্দাদের ওপর আবারও আক্রমণ শুরু করে। সে সময় তাদের অনেক ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার মত ঘটনা ঘটে।

কাদুনা রাজ্য পুলিশের কমিশনার জানান, সহিংসতার এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শহরজুড়ে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 নাইজেরিয়া