banglanewspaper

ক্যামেরুনের একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষকসহ কমপক্ষে ৭৮ শিক্ষার্থীকে অপহরণ করেছে সশস্ত্র বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। স্থানীয় গভর্নর দেবেন চোফো জানান, রবিবার রাতে দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের এনকোয়েন নামের স্কুলে অপহরণের এ ঘটনা ঘটে। বার্তা সংস্থা ‘এপি’- এর এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজধানী বামেনদার কাছেই এনকোয়েন গ্রাম। গ্রামের যে স্কুলটি থেকে শিশুদের অপহরণ করা হয়, সেটি একটি খ্রিস্টান প্রেসবাইটেরিয়ান চার্চের স্কুল। 

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ঘটনার পর সামাজিক গণমাধ্যমে অপহরণের একটি ভিডিও ছড়িয়ে দেয়া হয়। ভিডিওতে স্কুলের কয়েকজন বালককে নিজেদের নাম ও পিতামাতার নাম বলতে বাধ্য করা হয়। তারা বলে যে, ‘আমবা বয়েজ’ তাদের রবিবার অপহরণ করেছে৷ তবে কোথায় রাখা হয়েছে, তা তারা জানে না।

অপহরণকারীরা তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত শিশু-কিশোরদের জিম্মি করে রাখা হবে বলে জানিয়েছে।

‘দাবি আদায় হলেই কেবল আমরা তোমাদের ছাড়ব। আপাতত তোমরা এখানেই স্কুল করবে’। নিজেদের ‘আমবা বয়েজ’ বলে পরিচয় দেয়া এক ব্যক্তি বলেন।ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করা না গেলেও কিশোরদের বাবা-মায়েরা সন্তানদের শনাক্ত করেছেন এবং সামাজিক গণমাধ্যমে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন।

গত বছর ক্যামেরুনের এ অঞ্চলে মিলিটারি ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সংঘর্ষে শত শত মানুষ নিহত হয়েছেন। এখানে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ইংরেজি ভাষায় কথা বলে। তাদের অভিযোগ, দেশে এই অ্যাংলো ক্যামেরুনিয়ানরা সংখ্যালঘু হওয়ায় ফ্রেঞ্চ ভাষাভাষি সরকার তাদের শোষণ করছে।

বিচ্ছিন্নতাবাদীরা এই অভিযোগ তুলে অস্ত্র হাতে নিয়েছেন। তারা আমবাজোনিয়া নামের আলাদা রাষ্ট্র চান।

গত সপ্তাহেই বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের একটি রাবার বাগানে ঢুকে শ্রমিকদের আঙুল কেটে দিয়েছেন। কারণ, শ্রমিকরা বাগানে কাজ না করার আদেশ অমান্য করেছেন।

এর আগে বেমানদায় বিচ্ছিন্নতাবাদী ও সেনাবাহিনীর গোলাগুলির মাঝে পড়ে এক অ্যামেরিকান মিশনারি নিহত হন। গত মাসে ক্যামেরুনের প্রেসিডেন্ট পল বিয়া সপ্তমবারের মতো নির্বাচিত হওয়ার পর আবারো সহিংসতা শুরু হয় ক্যামেরুনে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ক্যামেরুন