banglanewspaper

ইভজিটিং কিংবা যৌন হেনস্তা শব্দগুলোর সঙ্গে আজকাল অহরহই দেখা হচ্ছে। ঘর থেকে রাস্তায় নামতেই নারীদের প্রতি লোলুপ মনোভাব নিয়ে তাদের হয়রানির চেষ্টা করছে বখাটেরা। অনেক নারী আবার নিজেকে সামলে নেয়ার কৌশল না বুঝে হেনস্তার শিকার হচ্ছেন। শুধু বাংলাদেশ কিংবা উপমহাদেশেই নয়, এই অবস্থা এখন তামাম দুনিয়াজুড়ে।  

প্রতিদিন পথে চলতে গিয়ে নারীদের হেনস্তার শিকার হওয়াটা যেন একটি সাধারণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। পাবলিক বাসে নারীদের ধাক্কা দেয়াটাও অভ্যাসে পরিণত হয়েছে অনেকের। কিছু বলতে গেলে উল্টো সেই নারীকেই শুনতে হয় নানা কুরুচিপূর্ণ কথা। 

তাহলে কী করবে নারীরা? হেনস্তার শিকার হলে কী করা উচিত?

অনেক সময় ভুক্তভোগী ঝামেলা এড়ানোর জন্য সবকিছু চেপে রাখেন। চুপ করে সহ্য করেন। কিন্তু এটি করা যাবে না। এতে হেনস্তাকারীরা আরও সাহস পাবে। যতটা সম্ভব জোর প্রতিবাদ করতে হবে। প্রয়োজনে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে। 

হেনস্তার শিকার হলে আগে নিজের নিরাপত্তার কথা ভাবুন। নির্জন জায়গায় থাকলে দ্রুত নিরাপদ এবং জনবহুল স্থানে যাওয়ার চেষ্টা করুন। পাবলিক ট্রান্সপোর্টে একা থাকলে এবং নিরাপদ বোধ না করলে পরের স্টপে দ্রুত নেমে যান। 

এছাড়া যদি মনে করেন কেউ আপনার পিছু নিচ্ছে তবে নিজের বাড়িতে না গিয়ে পরিচিত অন্য কারও বাড়িতে যান। প্রতিদিন এমন হলে অবশ্যই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানান। তাৎক্ষণিক বিপদে সাহায্য পেতে ৯৯৯ এ নম্বরে ফোন করুন।

মনে রাখবেন, জীবনটা আপনার। তাই অনাকাঙ্ক্ষিত কোনও ঘটনার জন্য বিষণ্নতায় ভুগে আত্মহত্যা কিংবা এধরনের কোনও চিন্তা মাথায়ই আনা যাবে না। 

ট্যাগ: bdnewshour24 হেনস্তা