banglanewspaper

যে জিম্বাবুয়েকে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ, সেই জিম্বাবুয়ের কাছেই নাকি টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টেই শোচনীয় হার। দুই ইনিংসের একটিতেও বড় কোনো সংগ্রহ গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। তাই ১৫১ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে। আর জিম্বাবুয়ে তুলেছে বিশাল সাফল্য, ১৭ বছর পর দেশের বাইরে টেস্টে জিতল জিম্বাবুয়ে। একইসঙ্গে লজ্জায় ডুবেছে বাংলাদেশ। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের আঙুলের সংক্রমণ সেরে উঠতে সময় লাগায় অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। দলের এই ব্যর্থহারের জন্য নিজেদেরই দুষছেন এই অলরাউন্ডার।

আজ মঙ্গলবার সিলেটে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের টেস্ট দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘অধিনায়ক এবং ক্রিকেটার হিসেবে এটা মেনে নেওয়া কষ্টকর। দর্শকরা ভালো কিছু দেখার আশায় এসেছিল। আমরা পারফর্ম করতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করছি। আশা করছি তাঁদের সমর্থন একই রকম থাকবে। বাংলাদেশ দল আগেও এমন পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে এসেছে। আশা করছি আবারও আমরা ঘুরে দাঁড়াব।’

ওয়ানডে সিরিজে ভালো খেলায় ওপেনার ব্যাটসম্যান যেমন ইমরুল কায়েস এবং লিটন দাস, শেষ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে জ্বলে ওঠা সৌম্য সরকারের জনপ্রিয়তা বেড়েছিল অনেক। এমনকি স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ এবং নাজমুল ইসলাম অপুও ইতিবাচকভাবে আলোচিত হয়েছিলেন ভক্তদের মাঝে। তবে এবার বোলিং বিভাগের সাফল্য ছাপিয়ে মুখ্য হয়ে উঠেছে ব্যাটিং বিভাগের ব্যর্থতা। সমালোচিত হয়েছেন খেলোয়াড়রা। এই ব্যাপারে টেস্ট অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘এভাবে পারফর্ম করলে ইমেজ অনেক বড় ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে। তবে খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে বলতে পারি, কোনো কিছু এত সহজে আমরা ছেড়ে দিব না। এমন অবস্থা থেকে আমরা শক্তভাবেই বেরিয়ে আসব। হয়তো এক ইনিংস পরেই আপনারা টেস্টে অন্য বাংলাদেশকে দেখবেন ইনশা আল্লাহ। ’

ট্যাগ: bdnewshour24 মাহমুদউল্লাহ