banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার জেএসসি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীকে নকলে সহায়তা করার অভিযোগে এক সহকারী শিক্ষককে দুই বছরের কারাদন্ড, অপর শিক্ষিকাকে আজীবন পরীক্ষা কেন্দ্রে নিষিদ্ধ ও ছাত্রীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) বেলা পৌনে একটার দিকে শ্রীপুর পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে গণিত বিষয় পরীক্ষা চলাকালে শিক্ষার্থীকে নকলে সহায়তা করলে এ ঘটনা ঘটে।

দন্ডপাওয়া শিক্ষক হেলাল উদ্দিন (৫৫) উপজেলা গোসিঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের জীব বিজ্ঞান বিষয়ের সহকারী শিক্ষক। সে পার্শ্ববর্তী ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার লংগাইর গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে। ফেরদৌসী বেগম (৪০) একই বিদ্যালয়ের ইংরেজী বিষয়ের শিক্ষিকা, বহিস্কৃত শিক্ষার্থী রুনা খোঁজেখানি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ও খোঁজেখানি গ্রামের আকরাম আলীর মেয়ে।

শ্রীপুর পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব নাসির উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার গণিত পরীক্ষা চলছিল। কেন্দ্রের এক নং কক্ষে হেলাল উদ্দিন ও ফেরদৌসী বেগম প্রত্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করছিল। পরীক্ষা শেষের কিছু পূর্বে ওই কক্ষে রুনা নামের এক ছাত্রী নকল করে পরীক্ষা দিচ্ছিল। শিক্ষক হেলাল উদ্দিন পাশে দাঁড়িয়ে তা দেখলেও নকল প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এসময় কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার প্রতিনিধি উপজেলা সহকারী স্বাস্থ্য, পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা জিনাত শারমিন হাতে নাতে ধরে ফেলেন। পরে তাদেরকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ভ্রাম্যমান আদালতে উপস্থাপন করলে হেলাল উদ্দিনকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও দুই হাজার টাকা জরিমানা, ফেরদৌসী আক্তারকে আজীবন পরীক্ষা কেন্দ্রে নিষিদ্ধ ও রুনাকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করেন।

এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেহেনা আকতার জানান, কেন্দ্রে নকল সরবরাহ করায় পাবলিক পরীক্ষা সমূহ অপরাধ আইন ১৯৮০-এর (৯) ধারা, মোতাবেক দন্ড প্রদান করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 শ্রীপুর গাজীপুর