banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ শুক্রবার বিয়ে ধুমধাম করে বিয়ে হবার কথা ছিল। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে বিয়ের সব প্রস্তুতি শেষ। বৃহস্পতিবার সকালে কনের পরীক্ষা শেষ হলে বিকালে গাঁয়ে হলুদের আসর। তাই কনের বাড়ীতে আত্মীয়স্বজনদের ভীড়। কিন্তুু সব আয়োজন রেখে পালালো কনে। তাও অভিনব পদ্ধতিতে।

গাজীপুরের শ্রীপুুর উপজেলায় এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর বর রুহুল আমীন বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় লিখিত ডায়েরী করেছেন।

ডায়েরী সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ নভেম্বর ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার পুরাদীটেক গ্রামের (১৯) সাথে ৩ লাখ টাকা কাবিনে বিয়ে হয় রুহুল আমিনের। আনুষ্ঠানিক ভাবে উঠিয়ে আনার জন্য ৩০ নভেম্বর বৌ-ভাত এবং ২৯ নভেম্বর গাঁয়ে হলুদের আয়োজন করা হয়।

নববধু বরমী ডিগ্রী কলেজে এইচএসসি ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী। বৃহস্পতিবার বরের ছোট ভাই নাঈম মিয়ার সাথে বরমী ডিগ্রী কলেজে যায় প্রেকটিক্যাল পরীক্ষা দেওয়ার জন্য। নাঈম কলেজের বাহিরে অপেক্ষা করতে থাকে। কিন্তু পরীক্ষা শেষে নববধুর সহপাঠিরা সবাই বেরিয়ে আসে কিন্তু তার আর খোঁজ পাওয়া যায় নি। পরে নাঈম কলেজে প্রবেশ করে জানতে পারে- জেসমিন পরীক্ষার সময় হলে উপস্থিত ছিল না।

নাঈমের ধারনা জেসমিন পিছনের গেইট দিয়া বাহির হয়ে পালিয়ে গেছে। বিষয়টি নাঈম তার ভাই রহুলকে জানালে নববধু খোঁজা শুরু হয়। পরে অভিযোগ করেন খোঁদ থানায়।

শ্রীপুর থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) নিলিমা দেবী জানান, ‘পরীক্ষা দিতে গিয়ে একজন নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে একটি সাধারণ ডায়েরী হয়েছে। এ বিষয়ে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 হলুদের আসর পালালো কনে