banglanewspaper

দক্ষ বৈমানিক ও বিমান প্রকৌশলী তৈরি করতে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০১৮’ চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (০৩ ডিসেম্বর) বর্তমান সরকারের মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, এটা আমাদের দেশের জন্য একটা নতুন। অ্যারোস্পেস… শুধুমাত্র এমআইএসটিতে (মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি) একটা ডিপার্টমেন্ট আছে। আর কোথাও কোনো সুযোগ নেই, এমনকি বুয়েটেও নেই। অ্যারোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংকে সম্প্রসারিত করার জন্য এ আইনটি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির গঠন নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, অন্যান্য ইউনিভার্সিটি যেরকম, একেবারে হুবহু একই রকম অনুসরণ করা হয়েছে। তেমন কোনো পরিবর্তন নেই। এ বিষয়ে অর্ডিন্যান্স (অধ্যাদেশ) জারি হবে। 

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর তত্ত্বাবধানে এই বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাস ঢাকার পূর্বাচল যাওয়ার পথে স্থাপিত হবে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, বিমান বাহিনী এবং বেসামরিক বিমান পরিবরহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় এই বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা হতে যাচ্ছে।

ট্যাগ: বঙ্গবন্ধু অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়