banglanewspaper

বয়স মাত্র ৬ বছর। এই বয়সে ক্রিকেট বোঝে এমন কতজন বালক আছে? অথচ এই বয়সেই কি না অস্ট্রেলিয়া জাতীয় টেস্ট দলে সুযোগ পেয়ে গেলো ৬ বছরের এক খুদে বালক! আশ্চর্য হচ্ছেন? আশ্চর্য হওয়ার মতই তো ঘটনা। ২৬ তারিখে বক্সিং ডেতে মেলবোর্নে ভারতের বিপক্ষে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার একাদশে যদি ৬ বছর বয়সী আরচি সেলারের নাম উঠে যায়, তবু অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

জীবনের মাত্র ৬টি বছর অতিক্রান্ত করেছে আরচি সেলার। এর মধ্যে অর্ধেকটা সময়ই তার কেটেছে হাসপাতালের বিছানায়। ১৩বার তার হৃদপিন্ডে অস্ত্রোপচার হয়েছে। তিনবার ওপেন হার্ট সার্জারি। সোজা কথা! বেঁচেই তো থাকার কথা নয় খুদে এই বালকের। কিন্তু সে দিব্যি বেঁচে আছে এবং অ্যাডিলেডে মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের সঙ্গে অনুশীলনও করেছে আরচি।

ওই সময়ই অস্ট্রেলিয়ান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার ৬ বছরের খুদেকে তাদের টেস্ট দলের অংশ হিসেবে ঘোষণা করেন। ২৬ ডিসেম্বর মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে অফিসিয়ালি অস্ট্রেলিয়ান টেস্ট দলের তালিকায় নামও থাকবে তার। যদিও, একাদশে নয়।

৬ বছর বয়সে যখন স্বপ্নগুলো তার ডানা মেলার কথা, তখনই স্বপ্নের বাস্তবায়ন হয়ে যাচ্ছে আরচি সেলারের। টেস্ট দলে ডাক পাওয়ার বিষয়টা হয়তো মানবিক এবং একজন রোগগ্রস্থ বালকের আত্মবিশ্বাসকে উঁচুতে তুলে ধরার প্রয়াস, সেটা তো বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে লেগ স্পিন করতে পারা আরচি সেলার কি না শুরুতেই স্বপ্ন দেখিয়ে দিলো! যদি অস্ট্রেলিয়ার একাদশে সুযোগ পায় তাহলে নিজের লেগ স্পিন দিয়ে বিরাট কোহলির উইকেট নিতে চায়।

লেগ স্পিনই তার বড় অস্ত্র। মূলতঃ তার ক্রিকেটার হওয়ার ইচ্ছেটা পূরণ করতেই অস্ট্রেরিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার দলের প্রস্তুতি দেখার সুযোগ করে দেন। কথা মতো মঙ্গলবার অ্যাডিলেডে অজিদের প্রস্তুতিতে হাজির আরচি। প্রস্তুতি দেখতে আসতেই তার হাতে ক্রিকেটের সরঞ্জামাদি এবং জার্সি তুলে দেন অসি ক্রিকেটাররা। তিন ঘন্টার বেশি সময় ধরে নেটে ঘাম ঝরায় অসিরা।

মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে অসিদের দলে আরচির থাকার বিষয়ে কোচ ল্যাঙ্গার জানিয়ে দিয়েছেন, প্রথম একাদশে না থাকলেও দলের সঙ্গে থাকতে পারবে এই ক্রিকেট ভক্ত। এরপরই আরচির স্বপ্ন জড়ানো উত্তর, একাদশে সুযোগ পেলে কোহলিকে আউট করতে চাই। তার ছেলের স্বপ্নের কথা শুনে তো অসি কোচ নিজেও চমকে যান। দেখার বিষয় স্বপ্নের নায়কের বিরুদ্ধে বোলিং করার সুযোগ পাবে কি আরচি? কোহলির ব্যাট গলে বল উইকেট ছুঁতে আর্চির মিষ্টি হাসি দেখার অপেক্ষায় তার পরিবারও।

আরচির চোখ কিন্তু অস্ট্রেলিয়া দলের নেতৃত্বে। অসি ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আরচির মন্তব্য, ‘আমি মার্কাস হ্যারিস এবং অ্যারোন ফিঞ্চকে বল করেছি এবং তারা আমার বলে বোল্ড হয়েছে। সুতরাং, এটা সত্যি হয়েছে যে, তাদের দলে আরও একজন লেগ স্পিনার খুব প্রয়োজন।’

আরচির সবচেয়ে ফেবারিট ক্রিকেটার নাথান লায়ন। অ্যাডিলেডে এসে স্বপ্নের নায়কেরও দেখা পেয়েছে আরচি এবং একসঙ্গে ছবিও তুলেছে। ছেলের বক্তব্য, ‘শুধু হার্টের এই অবস্থা তাকে একটু স্লো করে দিয়েছে, না হয় সে আরও ফাস্ট থাকতে পারতো।’

শারিরীক প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও আরচির স্বপ্ন, একদিন সে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হবে। তার সেই স্বপ্ন পূরণ করতেই মূলত জাস্টিন ল্যাঙ্গার ডেকে আনেন তাকে অস্ট্রেলিয়া দলের ট্রেনিং সেশনে। জাস্টিন ল্যাঙ্গার বলেন, ‘আমাদের সবচেয়ে বড় মূল্যবোধ হচ্ছে মানবিকতা। সেখান থেকেই আরচির মত এমন একজনকে আমরা সুযোগ করে দিতে চাই, যে আমাদের জন্য খুব বেশি সমস্যার কারণ হবে না। আশাকরি এই ঘটনার তার বাকি জীবন মনে থাকবে এবং তাকে স্বপ্ন দেখা ও বাস্তবায়নে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 অস্ট্রেলিয়া