banglanewspaper

প্রতি বছরের মতো এবারও বিশ্বের ১০০ ক্ষমতাধর নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ-বাণিজ্য বিষয়ক সাময়িকী ফোর্বস। সে তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থানের আরও উন্নতি ঘটেছে। এবার তিনি ২৬তম স্থানে রয়েছেন। 

ফোর্বস’র গত বছরের তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ৩০তম স্থানে। তার আগের বছর ৩৬ নম্বরে ছিলেন তিনি। ২০১৫ সালের তালিকায় তার অবস্থান ছিল ৫৯তম।

অর্থাৎ এই তালিকায় ধারাবাহিকভাবে উন্নতি ঘটেছে বাংলাদেশে সবচেয়ে দীর্ঘসময় ধরে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা শেখ হাসিনার।

প্রকাশিত ২০১৮ সালের তালিকায় শীর্ষস্থানটি ধরে রেখেছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তার পরই আছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। 

তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন আইএমএফ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিন লগার্ড, চতুর্থ স্থানে যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল মোটরসের চেয়ারপারসন ও সিইও মেরি বারা, পঞ্চম ফিডেলিটি ইনভেস্টমেন্টসের সিইও আবিগেইল জনসন এবং মেলিন্ডা গেটস রয়েছেন ষষ্ঠ স্থানে।

ক্ষমতাধরদের এ তালিকায় আছেন হলিউড অভিনেত্রী ও খেলোয়াড়ও। এ সময়ের সবচেয়ে দামি অভিনেত্রী টেইলর সুইফট রয়েছেন ৬৮তম স্থানে, বলিউড তারকা প্রিয়াংকা চোপড়া আছেন ৯৪তম স্থানে। আর টেনিস তারকা সেরেনা উইলিয়াম ৭৯তম স্থানে রয়েছেন।

শেখ হাসিনাকে ফোর্বসের তালিকায় স্থান দেওয়ার ক্ষেত্রে মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। 

একই ঘটনায় বিপরীত অবস্থানে থাকা মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির সেরা একশতেও স্থান হয়নি। অথচ দুই বছর আগেও তার অবস্থান ছিল ২৬তম। গেল বছর সাত ধাপ পিছিয়ে যায়।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সাময়িকী ফরচুনের করা বিশ্বের প্রভাবশালী শীর্ষ নেতাদের তালিকায়ও স্থান পেয়েছিলেন শেখ হাসিনা। একই তালিকায় রেখেছিল টাইম ম্যাগাজিনও।

ট্যাগ: bdnewshour24 ক্ষমতাধর নারী শেখ হাসিনা