banglanewspaper

জার্মানিতে নারীরা ভোটাধিকার পেয়েছেন ১০০ বছর আগে, কিন্তু সমান অধিকার পাননি।  গত বছর এক লাখেরও বেশি নারী তাদের সঙ্গী দ্বারা নির্যাতিত হয়েছেন।  জীবনও দিতে হয়েছে বহু নারীকে।

ডয়চে ভেলে বলছে, গত বছর জার্মানিতে মোট ১ লাখ ৩৮ হাজার ৪৯৩ জন তাদের সাবেক সঙ্গীর দ্বারা নির্যাতিত হয়েছেন।  আর তাদের মধ্যে ১ লাখ ১৩ হাজার ৯৬৫ জনই ছিলেন নারী।  শুধু তাই নয়, তাদের মধ্যে নির্যাতনের শিকার হয়ে ১৪৭ জনকে জীবন পর্যন্ত দিতে হয়েছে।  অথচ দেশটিতে নারীদের ভোটাধিকার পাওয়ার ১০০ বছর পূর্ণ হলো গত ৩০ নভেম্বর।

যদিও অনেক ক্ষেত্রেই মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে এগিয়ে, তারপরও সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়নি এখনো।  এক জরিপ বলছে, জার্মানিতে পড়াশোনা করতে ভালোবাসে শতকরা ৪৫.১ শতাংশ ছেলে, আর মেয়েদের ক্ষেত্রে তা শতকরা ৭২.৫ শতাংশ।

নর্থরাইন ওয়েস্ট ফেলিয়া রাজ্যে শতকরা ৪৫ ভাগ ছেলে আবিট্যুর বা হাইস্কুল গ্যাজুয়েট করে।  মেয়েদের ক্ষেত্রে এই হার শতকরা ৫৫ ভাগ।

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা শেষ করে শতকরা ২৭ ভাগ ছেলে।  এখানে মেয়েরা শতকরা ৩২ ভাগ, অর্থাৎ উচ্চশিক্ষায়ও মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে।

নারী এবং পুরুষ একই কাজ করলেও পুরুষকর্মীকে নারীর চেয়ে শতকরা ২১ ভাগ বেশি বেতন দেওয়া হয়।

জার্মানিতে ৪৬ শতাংশ নারীই কিন্তু চাকরিজীবী।  তবে লিডিং পজিশন বা ‘বস’ হওয়ার ক্ষেত্রে পুরুষরাই প্রাধান্য পেয়ে থাকেন।  এ ক্ষেত্রে লাটভিয়ার নারীরা এক নম্বরে।  সেখানে ৪৪.৩ শতাংশ নেতৃত্বস্থানীয় পদে  নারী।  সুইডেন রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। ওই তালিকায় জার্মানি রয়েছে ৯ নম্বরে।এ দেশের কর্মক্ষেত্রে ২৯.৩ শতাংশ নেতৃত্বস্থানীয় পদে রয়েছে নারী। 

অনেক রাজনীতিকই সমঅধিকার নিয়ে কথা বলেন, তবে বাস্তব পরিস্থিতি কি খুব ভালো? চাকরি, জীবনসঙ্গী, সেনাবাহিনী এবং সিভিল সুরক্ষার মতো নানা ক্ষেত্রে নারীর আইনি অধিকার থাকলেও জার্মান নারীরা এখনো তাদের পূর্ণ অধিকার চর্চার সুযোগ পায়নি।

ট্যাগ: bdnewshour24 নারী