banglanewspaper

বিপিএলে দর্শক খরা কাটছে না। কুড়ি ওভারের প্রতিযোগিতার শুরুর দিন থেকে গ্যালারিতে নেই দর্শক। সবচেয়ে কম উপস্থিতি বুধবার। বাইরে প্রতিযোগিতাটি নিয়ে আগ্রহ থাকলেও মাঠে তার প্রতিফলন নেই। আয়োজক থেকে ক্রিকেটার, সবাই হতবাক। সবাই কারণ খুঁজছে। ক্রিকেটপ্রেমীদের  তাই মাঠে এসে খেলা দেখার আহ্বান  মুশফিকুর রহিমের।

মিরপুরের গ্যালারিতে দর্শক না দেখে মুশফিকও হতাশ। সংবাদ সম্মেলনে কারণ খুঁজতে গিয়ে খানিকটা রসিকতাও করলেন তিনি, ‘সবাই মোবাইলে লাইভ দেখতে পারে, বাসায় বসে টিভিতেও দেখতে পারে, এটা একটা কারণ হতে পারে দর্শক না হওয়ার। এছাড়া সারা বছর আন্তর্জাতিক খেলা থাকে, হয়তো এখন বিশ্রাম নিচ্ছে দর্শকরা!’

যদিও দর্শক না হওয়াটা অপ্রত্যাশিতই। কারণ এবারের বিপিএলের উত্তেজনা আগের চেয়ে বেশি। বাংলাদেশের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতায় যোগ হয়েছে বিশ্বসেরা সব খেলোয়াড়ের নাম। ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, কিয়েরন পোলার্ড, সুনিল নারিন আগে থেকেই ছিলেন, এবার নাম লিখিয়েছেন স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও এবি ডি ভিলিয়ার্স। তাদের খেলা মাঠে সরাসরি দেখতে দর্শকদের প্রতি আহ্বান মুশফিকের, ‘আমি দর্শকদের উদ্দেশ্যে এটাই বলব- বড় বড় খেলোয়াড় এসেছে এবার। স্মিথ, ওয়ার্নার, রাসেল, পোলার্ডের খেলা মাঠে বসে দেখুন।’

বুধবার দিনের প্রথম খেলায় হেরেছে মুশফিকের চিটাগং ভাইকিংস। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে শেষ ওভারে জিততে তাদের প্রয়োজন ছিল ২৪ রান। ক্রিজে থাকা রবি ফ্রাইলিঙ্ক ও সানজামুল ইসলাম মিলে ১৮ রান নিলে ভাইকিংস ম্যাচ হারে ৫ রানে।

দুই ম্যাচে এক জয় ও এক হার ভাইকিংসের। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে হারলেও লড়াই করেছে তারা। মুশফিক মনে করেন, দল সঠিক পথেই আছে, ‘সব দলই চায় শুরুটা ভালো হোক, দলের কম্বিনেশনটা যেন ভালো হয়। আর দল জিতলে যে কম্বিনেশনেই খেলেন না কেন, মনে হবে ক্লিক করেছে। আমি আমার দলের পারফরম্যান্সে খুশি। বোলিং-ফিল্ডিং ভালো হয়েছে। মিডলে ব্যাটসম্যানরা আরও একটু অবদান রাখতে পারলে ভালো হতো।’

৬ রানে ৩ উইকেট হারানো সিলেট ১৬৮ রান সংগ্রহ করতে পেরেছে ডেভিড ওয়ার্নার ও আফিফ হোসেনের কল্যাণে। আফিফকে সঙ্গে নিয়ে ওয়ার্নার দলকে বিপদমুক্ত করেন। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনারকে উদহারণ হিসেবে সামনে এনে মুশফিকের বক্তব্য, ‘ডেভিড ওয়ার্নারের মতো খেলোয়াড় ১৬০-১৭০ স্ট্রাইক রেটে খেলে অভ্যস্ত। আজ শুরুটা ধীরে করেছিল, পরে স্ট্রাইক রেট বাড়িয়েছে। যদিও আফিফ দারুণ ইনিংস খেলায় চাপ কমেছে। আফিফ ঠিকঠাক সব করতে না পারলে ওয়ার্নারকে অবশ্যই সুযোগ নিতে হতো। এই উইকেটে বুদ্ধি দিয়ে স্মার্ট ক্রিকেট খেললে রান করা সম্ভব।’

যেমন উইকেটই হোক, সেখানে ব্যাটসম্যানদের মানিয়ে নেওয়া জরুরি বলে মনে করেন মুশফিক, ‘আমার মনে হয় উইকেটের কথা না ভেবে খেলোয়াড়দেরই মানিয়ে নেওয়া জরুরি। বিশ্বে যে সব জায়গায় টি-টোয়েন্টি লিগ হয়, সেখানে অনেক রান হয়। আমাদের এখানে একটু ভিন্ন। সুতরাং আমাদের মানিয়ে নিয়ে খেলতে হবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 মুশফিক