banglanewspaper

নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে পুলিশের ওপর হামলা, ভাংচুর ও পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকেই বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক অনানুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. আব্দুল বাতেন। 

এর আগে দুপুর ১২টা ১০ মিনিটে পল্লবী থানাধীন বিহারী ক্যাম্প এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগকারী ওয়াসিমকে গ্রেফতার করে পল্লবী থানার একটি দল।

ব্রিফিংয়ে আব্দুল বাতেন বলেন, গত ১৪ নভেম্বর ২০১৮, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর মনোনোয়নপত্র বিতরণ শুরু হলে নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে দুপুরের দিকে একটি বড় আকারের মিছিল থেকে পুলিশের ওপর আক্রমণ চালানো হয়। পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। পুলিশের গাড়ির ওপর দাঁড়িয়ে উন্মত্ততা প্রকাশ করে এবং পুলিশকে মারধর করে হামলাকারীরা।

তিনি বলেন, ওই ঘটনায় পরবর্তী সময়ে পল্টন থানায় ৩টি মামলা হয়। এসব মামলার তদন্তকালে পুলিশ ঘটনাস্থলের আশপাশের এলাকা থেকে ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে। ভিডিও ফুটেজ যাচাই বাছাইসহ প্রকাশ্য ও গোপনে তদন্ত করে পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগকারীকে শনাক্ত করা হয়।

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, ঘটনার পর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কর্মীরা মাথায় হেলমেট পরে এই নৈরাজ্য করেছে। তবে তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িত ১৪ জনকে এখন পর্যন্ত আমরা গ্রেফতার করেছি। দেখা গেছে গ্রেফতার হওয়া সবাই বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী।

ডিবি পুলিশের এ‌ই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, গ্রেফতার ওয়াসিম ওই হামলার ঘটনায় গাড়িতে অগ্নিসংযোগে সরাসরি জড়িত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। জড়িত যারা এখনো গ্রেফতার হয়নি, তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 পুলিশ হামলাকারী বিএনপির কর্মী