banglanewspaper

গত বছরের ১৬ জুলাই না ফেরার দেশে চলে গেছেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার বাবা মীর আবদুল্লাহ। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। প্রয়াত বাবাকে খুব মিস করছেন নায়িকা। তাইতো বাবাকে ভেবে সোমবার নিজের ফেসবুক পেজে দেন আবেগঘন এক স্ট্যাটাস।

স্ট্যাটাসে ফারিয়া লিখেন, ‘যে দিনটি দেখার জন্য তুমি সবচেয়ে বেশি অপেক্ষা করেছো, সেই দিনটি এগিয়ে আসছে। কিন্তু তুমি নেই। প্রতিটি ঘটনা ঘটে আর আমি কল্পনা করার চেষ্টা করি। তুমি থাকলে কী কী হতো। আমার হাতে মেহেদী দেখলে কী বলতে বা বিয়ের শাড়ি কেনার সময় তোমার পছন্দ কী হতো। মেহমানদের তুমি কী খাওয়াতে চাইতে। তুমি কি সবুজ পাঞ্জাবি পরতে?’

‘বাবা, মা গল্প বলে- ছোটবেলায় তুমি অফিসের কাজে বাইরে থাকলে আমি খুব বিরক্ত করতাম। খেতে চাইতাম না। তোমার কবিতা আবৃতি শুনিয়ে খাওয়াতে হতো। তোমার সেই কণ্ঠ শুনতে ভীষণ মন চায় বাবা। কিন্তু দুনিয়ার নিয়ম কী আজব! যে ঘটনায় যার সবচেয়ে বেশি খুশি হওয়ার কথা, তাকে ছাড়াই হবে সব আনন্দ, সব আয়োজন। কী নিষ্ঠুর পৃথিবীর নিয়ম।’

সামনেই বাপের বাড়ি ছেড়ে শ্বশুরবাড়ি যাবেন অভিনেত্রী ফারিয়া। মেয়ের এই বিশেষ দিনে তার বাবা সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন। কিন্তু তিনি তো আর ফিরে আসবেন না। তার দোয়া না নিয়েই নায়িকাকে স্বামীর ঘরে যেতে হবে। সব ধরনের আনন্দ, আয়োজন বাবা মীর আবদুল্লাহকে ছাড়াই করতে হবে। সেটা মনে করেই এমন আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন ছোট ও বড় পর্দার এই অভিনেত্রী।

ফারিয়ার স্বামী হারুনুর রশীদ অপু। তিনি একটি বেসরকারি বিপনণ সংস্থার জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক। গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি হবে তাদের বিবাহোত্তর সংবর্ধণা। সেই দিনটা যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাবাকে মনে পড়ছে ফারিয়ার। সেটারই প্রতিফলন ঘটেছে তার দেওয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ফারিয়া