banglanewspaper

মু. আব্দুর রহমানঃ বইপ্রেমীদের জন্য মহাসমারোহে শুরু হতে যাচ্ছে অমর একুশে বইমেলা-২০১৯। কবি-সাহিত্যিক-পাঠকদের এই মিলনমেলায় লেখকরা তাদের উপস্থিতি জানান দিবেন শক্তিশালী, হৃদয়গ্রাহী  লেখনী দিয়ে। এবারের বইমেলায় ব্যতিক্রমধর্মী ও সমকালীন উপন্যাস "আলো আসুক ফিরে" লিখে আলোচনায় তরুণ লেখক শাফিউল কায়েস।

সমকালীন এ উপন্যাসে লেখক রোহিঙ্গাদের জীবনের সুখ-দুঃখের রূপায়ন করেছেন। লেখক প্রত্যাশা করেন রোহিঙ্গাদের জীবনে আলো ফিরে আসুক অর্থাৎ তাঁরা যেন নিজ দেশে ফিরে যেতে পারে। মূল উপন্যাসে থাকছে 'রোহিঙ্গা' নামে একটি কবিতা।

একবিংশ শতাব্দীর এ সময়ে  রোহিঙ্গাদের অনিশ্চিত জীবনের যে ধ্রুবসত্য নিয়ে লেখক কলম ধরেছেন, আজ লেখকের যে উপন্যাস আমরা সমকালীন বলছি, তা অদূর ভবিষ্যতে ঐতিহাসিক উপন্যাসে পরিণত হবে, ঐতিহাসিক সত্য জানান দিবে ভবিষ্যত প্রজন্মকে।

লেখকের কাছে জানতে চেয়েছিলাম "আলো আসুক ফিরে" উপন্যাস নিয়ে প্রত্যাশাঃ `যেহেতু উপন্যাসটি সমকালীন এবং বাস্তবতার সাথে মিল রেখে লেখা। আশা করছি বইটি পড়ে পাঠক অনেক কিছু জানতে পারবে এবং বইটি কিনে কেউ হতাশা হবেন না।'

লেখালেখি নিয়ে ভবিষ্যৎ ভাবনাঃ `লেখালেখির মাধ্যমে পাঠকদের হৃদয়ে চিরকাল বেঁচে থাকতে চাই।' তরুণ ঔপন্যাসিক শাফিউল কায়েস ১৯৯৯ সালের ৬ ই মে  দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার ভোটারপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগে অধ্যায়নরত আছেন। পড়ালেখার পাশাপাশি তিনি ক্যাম্পাস সাংবাদিকতায় যুক্ত আছেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন "দি বাংলাদেশ টু ডে" তে। এছাড়া বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় সম্পাদকীয় পাতায় লেখালেখি করেন।

উল্লেখ্য, ঢাকা থেকে প্রকাশিত মাসিক ম্যাগাজিন  বাংলাদেশ মিররের বিজয় সংখ্যা-১৭'তে  "প্রত্যাশা" নামক কবিতা প্রকাশের মধ্য দিয়ে লেখালেখির জগতে প্রবেশ করেন তরুণ এই লেখক।

ইতিমধ্যে তার লেখা অনেক কবিতা বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। উপন্যাস লেখার পাশাপাশি মনোনিবেশ করেছেন প্রবন্ধ,কবিতা,গল্প,থ্রিলার লেখায়।

ট্যাগ: bdnewshour24 বইমেলা শাফিউল কায়েস আলো আসুক ফিরে