banglanewspaper

সুন্দরবনের জবাই করা বিরল প্রজাতির একটি চিত্রল হরিণ, নৌকা ও হরিণ ধরার ফাঁদ উদ্ধার করেছে বনবিভাগ। বুধবার গভীর রাতে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের চরাপুঁটিয়া টহল ফাড়ির কাগার ভাড়ানীর খাল এলাকা থেকে বনবিভাগের কর্মকর্তারা হরিণ, নৌকা ও হরিণ ধরার ফাঁদ জব্দ করে।

তবে এসময় কোনো চোরা শিকারিকে আটক করতে পারেনি বনবিভাগ। এই ঘটনায় চরাপুঁটিয়া টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে বণ্যপ্রাণী আইনে পৃথক দুটি মামলা করেছেন।

এ মামলার আসামিরা হলেন, জেলার মংলা উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের চাঁদপাই গ্রামের হাকিম হাওলাদারের তিন ছেলে এখলাস হাওলাদার, ইয়াছিন হাওলাদার এবং ইলিয়াস হাওলাদার।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের চাদঁপাই রেঞ্জের চরাপুঁটিয়া টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)ইসমাইল হোসেন বলেন, মংলা উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের চাঁদপাই গ্রামের হাকিম হাওলাদারের তিন ছেলে গত ১৫ জানুয়ারি বনবিভাগের কাছ থেকে পাশপারমিট নিয়ে সুন্দরবনে নদীখালে মাছ শিকারে যান। বনবিভাগের বনরক্ষীরা নিয়মিত টহলের সময় একটি ডিঙ্গি নৌকা দেখতে পেয়ে তাদের চ্যালেঞ্জ করে।

বনরক্ষীদের দেখতে পেয়ে নৌকায় থাকা তিন ভাই নৌকা রেখে দৌড়ে বনের ভেতর পালিয়ে যান। পরে তাদের ফেলে যাওয়া নৌকায় তল্লাশি চালিয়ে একটি জবাই করা হরিণ ও ২০০ ফুট হরিণ শিকারের ফাঁদ পাওয়া যায়।

এই ঘটনায় তিন সহোদরের বিরুদ্ধে বণ্যপ্রাণী আইনে পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 সুন্দরবন ফাঁদ জবাই করা হরিণ