banglanewspaper

রিকি হালদার। এসএসসি পরীক্ষার্থী। খ্রিস্ট ধর্মের সেভেন্থ ডে অ্যাডভেন্টটিস্ট সম্প্রদায়ের অনুসারি হওয়ায় ধর্মীয় বিধান অনুসারে তাদের শনিবার দিনের বেলায় লেখা নিষেধ। আর সেই শনিবারেই চারটি বিষয়ের পরীক্ষা পড়েছে তার।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পারফেক্ট ইংলিশ ভার্সন স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী রিকি হালদার। রোল নম্বর ১১১৩৫২ ও নিবন্ধন নম্বর ১৫১৩৬০৪৫২২। তাহলে কি পরীক্ষায় রিকি হালদার অংশগ্রহণ করবে না?

দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় পরীক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকরা। অনেক ভেবে একটা উপায় বের করেন তারা। শরণাপন্ন হন যশোর বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে। আবেদন করা হয় তার শনিবারের পরীক্ষা যেন দিনের পরিবর্তে রাতে নেয়া হয়। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ।

শনিবার ২ ফেব্রুয়ারি বাংলা, ৯ ফেব্রুয়ারি গণিত, ১৬ ফেব্রুয়ারি রসায়ন ও ২৩ ফেব্রুয়ারি উচ্চতর গণিত পরীক্ষা সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত শুধু রিকি দেবে। তবে তাকে সহপাঠীদের সঙ্গে সকালেই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। আর বের হতে হবে রাতে পরীক্ষা শেষে। রাতে একজন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা গ্রহণের জন্য কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাই দায়িত্বে থাকবেন। যশোর বোর্ডের ইতিহাসে এসএসসিতে এবারই প্রথম কোনো শিক্ষার্থীর জন্য আলাদাভাবে রাতে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

পরীক্ষাথী রিকি হালদারের বাবা রিপন হালদার বলেন, আমাদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী শনিবার দিনের বেলায় কোনো কাজ, বেচাকেনা ও লিখিও না। আমরাও শনিবার রাতে পরীক্ষা দিয়ে এসেছি। ছেলের পরীক্ষাও শনিবার পড়েছে। বোর্ডে আবেদন করেছি রাতে পরীক্ষা গ্রহণের জন্য। এনজিও চাকরির সুবাদে কুমারখালীতে আছি। আমাদের বাড়ি বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায়। যশোর অঞ্চলে এমন পরীক্ষার্থী কম হলেও ঢাকা বোর্ডে অনেকে রাতে পরীক্ষা দেবে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক জাহিদ হোসেন মোবাইল ফোনে জানান, স্কুল থেকে এবার ৮ পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এরমধ্যে রিকি হালদার ব্যতিক্রম। ধর্মীয় অনুশাসনের কারণে শনিবার দিনের বেলায় পরীক্ষা দেয়া নিয়ে সমস্যা আছে। এর আগে শনিবার কোনো পরীক্ষা না থাকায় কোনো সমস্যা হয়নি। এবার বোর্ডে চারটি পরীক্ষা শনিবার পড়েছে। এজন্য তার সমস্যা আছে। বিষয়টি অবহিত করে রাতে পরীক্ষা গ্রহণের জন্য বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়। বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার পরীক্ষা রাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ছেলেটি লেখাপড়া ভাল। পরীক্ষা ভাল করবে বলে আশাবাদী।

যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেন, ওই পরীক্ষাথী খ্রিস্ট ধর্মের সেভেন্থ ডে অ্যাডভেন্টস্ট সম্প্রদায়ের মানুষ। ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী, তার শনিবার দিনের বেলায় লেখার বিষয়ে নিষেধ রয়েছে। বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করে প্রতিষ্ঠান প্রধানের মাধ্যমে বোর্ডে আবেদন করা হয়।

তার দাবি ছিল দিনের পরিবর্তে রাতে পরীক্ষা গ্রহণ করার। বিষয়টি আমলে নিয়েছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ। শনিবারের পরীক্ষাগুলো সে রাতে দিতে পারবে। এজন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকাসহ অন্যান্য বোর্ডে রাতে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে ইতোপূর্বে রাতে পরীক্ষা নেয়ার নজির আছে। জেএসসিতেও আমরা নিয়েছি। এসএসসিতে এবারই প্রথম রাতে পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।

যশোর শিক্ষাবোর্ডে এবার ১ লাখ ৮৪ হাজার ২শ’ জন এসএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছে। পরিবর্তন ডটকম

ট্যাগ: bdnewshour24 দিনে লেখা নিষেধ রাতে এসএসসি