banglanewspaper

বিপিএলে আহামরি ভালো ব্যাটিং করেননি। তার দলও বিদায় নিয়েছে। তারপরেও আলোচনায় সাব্বির রহমান। মূলত বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে নিষিদ্ধ হওয়া সাব্বির এখন নিউজিল্যান্ড সফরে জাতীয় দলের সদস্য।

তবে দলে তার সুযোগ পাওয়া নিয়ে যতটা আলোচনা তার চেয়ে বেশি সমালোচনা নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাকে স্কোয়াডে রাখা নিয়ে। স্কোয়াডে তাকে জায়গা করে দিতে তার শাস্তির মেয়াদ পর্যন্ত কমিয়েছে বিসিবি।

তাকে নিয়ে বোর্ড সভাপতি থেকে শুরু করে নির্বাচক, অধিনায়ক মিলিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। এবার সাব্বিরকে নিয়ে সমালোচনা বিদেশি গণমাধ্যমে। বাংলাদেশ দলের পরবর্তী সফর যে দেশে, সেই নিউজিল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা ‘স্টাফ ডন’ সরব সাব্বির ইস্যু নিয়ে।

তারা সাব্বিরের ব্যাপারটাকে নেতিবাচক হিসেবেই দেখছে। যদিও নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে দলে ফেরানো নজির এটিই প্রথম নয়। সাকিব আল হাসানকেও একবার শাস্তির মেয়াদ কমিয়ে দলে ফেরানো হয়েছিলো। কিন্তু সাব্বির ইস্যুতে জল ঘোলার সুযোগটা করে দিয়েছে বিসিবি কর্মকর্তারাই।

সাব্বিরকে দলে ফেরানোর দায় নিচ্ছেন না কেউই। খোদ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন নাকি বিষয়টা জানেনই না। প্রধান নির্বাচক দায় দিচ্ছেন অধিনায়ক মাশরাফির ওপর। আর মাশরাফিও অভিমানের সুরে সেই দায় কাঁধে তুলে নিয়েছেন একটু বোর্ড কর্তাদের একটু খোঁচা মেরেই।

বিষয়টা যে হাস্যরসের খোরাক জুগিয়েছে সেটাও তুলে ধরেছেন নিউজিল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা ‘স্টাফ ডন’। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার তিন সপ্তাহ আগেই নিষিদ্ধ ক্রিকেটারকে দলে ভিড়িয়েছে বাংলাদেশ এমন শিরোনামে শুরু করা পত্রিকাটি লিখেছে,’ ‘শাস্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার তিন সপ্তাহ আগেই নিষিদ্ধ ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানকে নিউজিল্যান্ড সফরে দলে টানার কারণ হিসেবে বোঝাবুঝির ভুলকে দোষারোপ করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।’

বিষয়টাকে হাস্যকর হিসেবে উল্লেখ করে পত্রিকাটি শঙ্কা প্রকাশ করেছে এমন বিতর্কিত বিষয় ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সংস্কৃতিতেও বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘পেশাদার প্রতিষ্ঠান হিসেবে তাঁরা হাস্যরসের বিষয়বস্তু। এ ছাড়াও সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দলের সংস্কৃতি নিয়ে এটি বিপজ্জনক বার্তাও।’

বিসিবির এভাবে দায় স্বীকার না করারকে তাদের ইউটার্ন হিসেবে দেখছে স্টাফ ডন।

ট্যাগ: bdnewshour24 সাব্বির নিউজিল্যান্ড গণমাধ্যম