banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: সড়ক জুড়ে নোংরা, দুর্গন্ধযুক্ত পানি; বাস, সিএনজি অটোরিকশা বা ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা যে কোনটাই উঠতে গেলে নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি মাড়িয়ে উঠতে হচ্ছে যাত্রীদের। আর এতে করে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। অবস্থা এমন পর্যায়ে দাঁড়িয়েছে যেন দেখার কেউ নেই? 

নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আটাবহ ইউনিয়নের এবং সাভারের আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকা বাড়ইপাড়া-জালশুকা-চান্দাবহ সড়কের প্রবেশপথের এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। 

শিল্প অধ্যুষিত গাজীপুরের কালিয়াকৈর ও আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া এলাকায় প্রায় কয়েক হাজার মানুষের আনাগোনা থাকে দিনে রাতে। আশপাশে রয়েছে বেশ কয়েকটি শিল্প কারখানা। রয়েছে একটি কেন্দ্রীয় মসজিদ। তাছাড়া অসংখ্য স্কুল, মাদ্রাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। অথচ গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সড়কের মূল প্রবেশপথে এরকম অবস্থার কারণে স্বাভাবিক চলাচলে বেগ পেতে হচ্ছে সকল শ্রেণী পেশার মানুষজনদের। যত দ্রুত সম্ভব এ অবস্থার থেকে পরিত্রান চান তারা। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া এলাকায় মহাসড়কের পশ্চিম অংশে রফিক রাজু স্কুলের পিছনে একটি ফাঁকা জলাশয় ছিল। সেখানেই আশপাশের বাসা-বাড়ির পানি নিষ্কাশন হতো। তবে কয়েকদিন আগে ওই জমির মালিক জলাশয় ভরাট করতে মাটি ফেলতে শুরু করে। ফলে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে ওই এলাকার বাসা-বাড়ির পানি সড়ক দিয়ে বাড়ইপাড়া মসজিদের সামনে দিয়ে বাড়ইপাড়া-জালশুকা-গোসাত্রা-চান্দাবহ সড়ক দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ইপাড়া স্ট্যান্ড এ নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানির প্রবাহ যা বাড়ইপাড়া-জালশুকা-গোসাত্রা-চান্দাবহ সড়কে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে সড়কের মূল প্রবেশপথে যাত্রীসেবা দিতে সিএনজি অটোরিকশা বা ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চালকেরা বেশ দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। আর সাধারণ যাত্রীরা কোন পরিবহনে উঠতেও পারছে না। এছাড়া পানি দুর্গন্ধযুক্ত থাকায় এমন।অবস্থা হয়েছে যে নাক,মুখ চেঁপে ওই স্থান পাড়ি দিতে হচ্ছে। পায়ে হেঁটে যেতেও বেগ পেতে হচ্ছে। 

বাসের জন্য অনেক সময় দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। কিন্তু নোংরা আর দুর্গন্ধযুক্ত পানির কারণে বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকাও এখন সম্ভবপর হচ্ছে না। নারী, শিশু, বৃদ্ধ, শিক্ষার্থীসহ সকলেই অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। 

এছাড়া, পাশেই রয়েছে বাড়ইপাড়া বাজার কেন্দ্রীয় মসজিদ। বিপুল সংখ্যক মুসল্লী এখানে প্রতিদিন নামাজ আদায় করে। নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানির কারণে নামাজ আদায় করতে বেশ সমস্যা হচ্ছে বলে জানিয়েছে নামাজ পড়তে আসা কয়েকজন মুসল্লী। তাদের দাবি অনেকদিন ধরে এ অবস্থা থাকলেও কেউ কর্ণপাত করছে না। দেখার কি কেউ নেই? এমন প্রশ্ন অনেকেরই। 

কয়েকজন সিএনজি অটোরিকশা চালকের সাথে কথা হয়। তারা জানান, প্রায় ২ সপ্তাহ যাবত সড়কে এ অবস্থা। নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানির জন্য নির্ধারিত স্থানে গাড়ি রাখা যায়না। ফলে যাত্রী উঠানামা করাতে তাদের বেগ পেতে হচ্ছে। 

গাজীপুরের ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের (এমবিএ-ব্যবস্থাপনা) ফাইনাল বর্ষের শিক্ষার্থী আশিক মাহমুদ 'বিডিনিউজ আওয়ার'কে বলেন, ব্যস্ততম সড়কটির প্রবেশ পথে নোংরা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানির প্রবাহের কারণে আমাদের চলাচলের বিঘ্ন ঘটছে। তাছাড়া রয়েছে স্বাস্থ্য ঝুঁকিও। আমরা এ থেকে পরিত্রাণ চাই। 

স্থানীয় কয়েকজন ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, লাগাতার বেশ কয়েকদিন ধরেই সড়কে নোংরা পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া অনেক সময় জলাবদ্ধতাও হয়। ফলে ব্যবসার কাঁচামাল পরিবহনে তাদের খুবই সমস্যা হচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব তারা এ অবস্থা থেকে মুক্তি চান। 

এ অবস্থা চলতে থাকলে চরম ভোগান্তি ও বিপাকে পড়তে হবে এলাকাবাসীর। তাই তারা দ্রুত এ অবস্থা থেকে পরিত্রান চান। 

অপরদিকে, সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ার কারণে জনপ্রতিনিধিরা তেমন গুরুত্ব দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেছে এলাকাবাসীসহ সাধারণ জনগণ।

ট্যাগ: bdnewshour24 গাজীপুর কালিয়াকৈর