banglanewspaper

কী অদ্ভুত মিল দেখুন। দু’জনেই এ সময়ে বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। আর আজ ৫ ফেব্রুয়ারি দু’জনেরই জন্মদিন!  একজন পর্তুগিজ উইঙ্গার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আরেকজন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার।

১৯৮৫ সালের এই দিনে মারিয়া দোলোরেস দস সান্তোস আভেইরো এবং জোসে দিনিস আভেইরোর ঘর আলোকিত করে জন্ম নেন সিআরসেভেন। এ হিসেবে আজ ৩৩ বছর পূর্ণ করলেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা রোনালদো। তার মানে তিনি আজ ৩৪-এ পা রাখতে যাচ্ছেন।

খুব ছোটবেলা থেকেই ফুটবলের প্রতি আগ্রহ ছিলো রোনালদোর। ছেলেবেলা থেকেই চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসতেন তিনি। সমবসয়ীদের চেয়ে বয়েসে বড় ছেলেদের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করতেন রোনালদো। এখনো চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে থাকেন সময়ের সেরা ফুটবলার। লা লিগার ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে পাড়ি জমিয়েছেন সিরি এ’র ক্লাব জুভেন্টাসে। সেখানেও নিজেকে প্রমাণ করে চলেছেন রোনালদো। নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য উচ্চতায়। বর্তমান সময়ের অন্যসব ফুটবলার থেকে নিজেকে আলাদাভাবেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন তিনি।

ব্রাজিলের সব কিংবদন্তিদের সবকিছুর প্যাকেজ যার মধ্যে, তিনি নেইমার ডা সিলভা সান্তোস জুনিয়র। ১৯৯২ সালে জন্ম তার। এ হিসেবে ২৬ পেরিয়ে আজ ২৭ রাখলেন তিনি।

মাত্র ৯ বছর বয়সে পেলের স্মৃতিবিজড়িত ক্লাব সান্তোসে নাম লিখিয়েছিলেন ৯ বছর বয়সে। ২০১৩ মৌসুমে সান্তোসের সঙ্গে গাঁটছড়া ছিন্ন করে যোগ দিয়েছেন স্বপ্নের ক্লাব বার্সেলোনায়। বর্তমানে ব্রাজিলের অধিনায়কও তিনি। 

এ দুজন ছাড়া এই দিনে জন্ম হয় আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার কার্লোস তেভেজ- এর। ১৯৮৬ সালে জন্ম তার। আজ তিনি পালন করবেন ৩৩তম জন্মদিন। তিনি আর্জেন্টিনা থেকে উঠে আসা বিশ্ব ফুটবলের উদীয়মান খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম। আর্জেন্টিনার সহযোগী খেলোয়াড় মেসির মত তাকেও নতুন মারাদোনা নামে ডাকা হত। দিয়েগো ম্যারাডোনা একসময় তাকে আর্জেন্টিনার ২১ শতকের গুরু আখ্যা দিয়েছিলেন। তেভেস পর পর তিন বার বছরের সেরা দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবলার-এর খেতাবটি জিতেছেন।

ট্যাগ: b